× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

ডিপিএল ২০২৪

দুই ম্যাচ হাতে রেখেই চ্যাম্পিয়ন আবাহনী

প্রবা প্রতিবেদক

প্রকাশ : ৩০ এপ্রিল ২০২৪ ১৭:৩৩ পিএম

আপডেট : ৩০ এপ্রিল ২০২৪ ২০:০২ পিএম

টানা দ্বিতীয়বার লিগ শিরোপা ঘরে তুলেছে খালেদ মাহমুদ সুজনের দল— ছবি: আ. ই. আলীম

টানা দ্বিতীয়বার লিগ শিরোপা ঘরে তুলেছে খালেদ মাহমুদ সুজনের দল— ছবি: আ. ই. আলীম

সমীকরণ ছিল সোজাসাপ্টা— শেখ জামালকে হারাতে পারলেই চুকে যাবে ডিপিএল ২০২৪ এর যত হিসাব-নিকাশ। আজ মঙ্গলবার বিকেএসপিতে ৪ উইকেটে জিতে আবাহনী লিমিডেট প্রিমিয়ার লিগের শিরোপার সমীকরণ মিটিয়ে দিয়েছে। সুপার লিগে সাকিবদের দলকে হারিয়ে আকাশি-নীলরা মেতেছে ২৩তম লিগ শিরোপার উদযাপনে। মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতদের এটি টানা দ্বিতীয় লিগ শিরোপা।

ডিপিএল সুপার লিগে শেখ জামালের বিপক্ষে নামার আগে সংশয় প্রকাশ করেছিলেন দলটির কোচ খালেদ মাহমুদ সুজন। ফিটনেস ক্যাম্প এবং জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে সিরিজের কারণে ১০ জন খেলোয়াড় ছাড়তে হয়েছে আবাহনীকে। শিরোপা উদযাপনের প্রস্তুতি নিয়ে নামার দিনেও তাই অস্বস্তি ছিল কিছুটা। সেটি সিদ্ধ হস্তেই সামলেছে চ্যাম্পিয়ন শিবির। সাকিবের ক্রিকেটে ফেরার দিনে টানা ১৪ ম্যাচ অপরাজিত থেকে নিশ্চিত করেছে শিরোপা। সুপার লিগের তৃতীয় রাউন্ডে শেখ জামালের ২৬৭ রানের লক্ষ্য ১ বল ও ৪ উইকেট হাতে রেখে পেরিয়েছে আবাহনী। লিগের ১১ ম্যাচের পর খালেদ মাহমুদ সুজনের শিষ্যদের আরও তিন জয়ে দুই রাউন্ড হাতে রেখেই ফয়সালা হয়েছে লিগের।

কোচ হিসেবে এনিয়ে অষ্টম শিরোপা আবাহনীকে এনে দিয়েছেন খালেদ মাহমুদ সুজন। শিরোপা জয়ের পর উচ্ছ্বসিত কোচ কৃতিত্ব দিয়েছেন ক্রিকেটারদের, ‘অবশ্যই আমি আনন্দিত। যতই পরিকল্পনা করি না কেন মাঠে সেটার প্রতিফলন কিন্তু ক্রিকেটাররাই করে। আজকে দেখেন আমাদের দ্বিতীয় সারির দল নিয়েও ২৬৭ রান তাড়া করে জিতেছি। শুরু থেকেই বলে আসছি আমরা সেরা দল গড়েছি। শিরোপা জয় দিয়ে তা প্রমাণ করলাম।’

গতকাল বিকেএসপিতে নামার আগের দিন আফসোস করে আবাহনী কোচ বলেছিলেন, ‘অপরাজিত থেকে চ্যাম্পিয়ন হতে চাচ্ছিলাম। কাগজে কলমে এখন (১০ খেলোয়াড় চলে যাওয়ায়) শেখ জামাল শক্তিশালী। উদ্বিগ্ন না, লড়াই করব।’ লড়াই-ই হয়েছে বটে। বিকেএসপিতে দুটি ম্যাচের ফয়সালাই হয়েছে শেষ ওভারে। তিন নম্বর মাঠে হয়েছে শাইনপুকুর ও মোহামেডানের ম্যাচ। চার নম্বরে আবাহনী ও শেখ জামালের। দুটি ম্যাচ শেষ দুটি ওভারে চলে আসে একই অবস্থানে। দারুণ উত্তেজনায়। শেষ দুই ওভারে মোহামেডানের বিপক্ষে শাইনপুকুরের জিততে দরকার ১৭ রান। এদিকে শেখ জামালের বিপক্ষে আবাহনীর জিততে দরকার ১৯ রান। শাইনপুকুর শেষ পর্যন্ত জিততে পারেনি, মোহামেডান সমীকরণ থামিয়েছে ৮ রান আগেই। 

তবে আবাহনীকে ব্যর্থ হতে দেননি মোসাদ্দেক। আবাহনীকে শিরোপা উদযাপনে ভাসাতে শেষ ওভারের পঞ্চম বলে ছক্কা মেরে ম্যাচ জিতিয়েছেন। অবশ্য শেষ ওভারে ৯ রানের প্রয়োজনীয়তা খুব কঠিন ছিল না আবাহনীর জন্য। আগের চার বলেই ৮ রান নিয়ে নেন মোসাদ্দেক। তার ৫৪ বলে ৫৩ রানের পাশাপাশি আফিফ হোসেনের ৮৩ ও এনামুল হক বিজয়ের ৬৭ রানে ৬ উইকেটে ২৭৩ করে আবাহনী। এর আগে জিয়াউর রহমানের ৫৮ বলে ৮৫, সাকিব আল হাসানের ৪৯ ও নুরুল হাসান সোহানের ৪১ রানে ৯ উইকেটে ২৬৭ রান করে শেখ জামাল।

অপর মাঠে শেষ ওভারে ১১ রানের লড়াইয়ে মুখ ধুবড়ে পড়ে শাইনপুকুর। নিতে পারে মোটে ২ রান। আবু হায়দার রনি শেষ ওভারেই নেন দুই উইকেট। এর আগে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদের ৫৬, মেহেদি হাসান মিরাজের ৫৮ ও আরিফুল হকের ৪১ রানে ২৫৫ রান করে মোহামেডান। রান তাড়ায় মার্শাল আইয়ুব ৭০ ও আকবর আলি ৬১ রান করেও দলকে জেতাতে পারেননি। দুই বল আগে শাইনপুকুরকে অলআউট হতে হয় ২৪৭ রানে।

অবশ্য লিগের যত উত্তাপ তা মিটে যায় আবাহনীর জয়ের কারণেই। শেখ জামাল লিগের পর সুপার লিগেও হেরেছে। খালেদ মাহমুদ সুজনের দল এখন টেবিলের শীর্ষে ২৮ পয়েন্ট নিয়ে, নিকট দূরত্বে থাকা মোহামেডানের পয়েন্ট ২২। বাকি দুই রাউন্ডের ম্যাচ আবাহনী হারলেও খুব কাছের মোহামেডান তাদেরকে ধরতে পারবে না। 

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা