× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

রিশাদের শেষের ঝড়ে সিরিজ বাংলাদেশের

প্রবা প্রতিবেদক

প্রকাশ : ১৮ মার্চ ২০২৪ ০৯:৩৪ এএম

আপডেট : ১৮ মার্চ ২০২৪ ১৭:৪৪ পিএম

রিশাদ শেষ সময়ে খেলেছেন ক্যামিও,  বাংলাদেশ জিতেছে ওয়ানডে সিরিজ— ছবি: এক্স

রিশাদ শেষ সময়ে খেলেছেন ক্যামিও, বাংলাদেশ জিতেছে ওয়ানডে সিরিজ— ছবি: এক্স

রিশাদ হোসেন যখন ব্যাটিংয়ে নামেন তখন পেন্ডুলামের মতো দুলছে ম্যাচের ভাগ্য। বেশির ভাগ বাংলাদেশী সমর্থকের চোখ তখন মুশফিকুর রহিমের ব্যাটে নিবদ্ধ। কিন্তু অভিজ্ঞ ব্যাটারকে স্রেফ দর্শক বানিয়ে দেন তরুণ স্পিনার রিশাদ। চার-ছক্কায় লঙ্কান বোলারদের উড়িয়ে কাটিয়ে দেন শঙ্কা। তার শেষের ঝড়েই বাংলাদেশ পায় আরেকটি সিরিজ। চট্টগ্রামে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে শ্রীলঙ্কাকে ৪ উইকেটে হারিয়েছে বাংলাদেশ। মুশফিকের ৩৬ বলে ৩৭ রানের পাশাপাশি রিশাদের ছিল ১৮ বলে ৪৮ রানের ক্যামিও।


হাসারাঙ্গার বলে ফিরলেন মিরাজ


লং হপ ছিল। এমন বলে উইকেট পাবেন, সেটি হয়তো আশা করেননি হাসারাঙ্গা নিজেও। লেগ সাইডের বলে ঘুরিয়ে খেলতে গিয়ে ডিপ স্কয়ার লেগে ক্যাচ তুলে ফিরলেন মেহেদি হাসান মিরাজ। ভাঙল ৪৮ রানের জুটি। মিরাজ থামলেন ২৫ রান করে। মিরাজকে ফিরিয়ে আবার লড়াইয়ে ফিরল শ্রীলঙ্কা।


বাংলাদেশকে টানছেন মুশফিক-মিরাজ জুটি


১০৫/২ থেকে ১৩০ রানেই নেই ৫ উইকেট। সেখান থেকে দলকে টানছেন দুই স্বীকৃত ব্যাটার মুশফিকুর রহিম ও মেহেদি হাসান মিরাজ। এরই মাঝে দুজনের জুটি ৪৩ ছাড়িয়ে গেছে। নিয়মিত স্ট্রাইক বদল করে যাচ্ছেন দুজন। এ জুটি আরও কিছুক্ষণ থাকলে বেশ স্বস্তিকর অবস্থানে যাবে বাংলাদেশ।


হাসারাঙ্গার ঘূর্ণিতে থামলেন তানজিদ



পরপর ২ ওভারে জোড়া উইকেট হারালেও বিচলিত ছিলেন না তানজিদ হাসান তামিম। কুমারার শর্ট বলে পুল করে ইনিংসের চতুর্থ ছক্কা হাঁকান তিনি। সেই ঝড় বহাল রাখার চেষ্টা করছিলেন হাসারাঙ্গার ওপরেও। তবে শট খেলার পরই বুঝতে পেরেছিলেন, সামনে বিপদ। ৮১ বলে ৮৪ রান করে লং অনে ধরা পড়েছেন তানজিদ। ১৩০ রানে পঞ্চম উইকেট হারিয়েছে বাংলাদেশ, ২৫.৫ ওভার হয়েছে খেলা। এখন মুশফিকের সঙ্গী শেষ স্বীকৃত ব্যাটসম্যান মেহেদী হাসান মিরাজ।  


ফের কুমারার জোড়া শিকার  


আগের দুই ব্যাটসম্যান এনামুল হক বিজয় ও নাজমুল হোসেন শান্তকে সাজঘরে পাঠিয়েছিলেন লাহিরু কুমারা। এবার ডানহাতি এই পেসারের শিকার হলেন তাওহিদ হৃদয় এবং মাহমুদউল্লাহ রিয়াদও। ২ উইকেটে শতরান পার করার পর ১১৩ রানেই নেই ৪ উইকেট। অবশ্য একপ্রান্ত আগলে ধরে রেখেছেন ফিফটি হাঁকানো তানজিদ হাসান তামিম। 


২২তম ওভারের চতুর্থ বলে কুমারার শর্ট বলে ডিপ স্কয়ার লেগে প্রমোদ মাদুশনকে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরেন হৃদয়। যার ফলে তানজিদের সঙ্গে জুটি থামে ৪৯ রানেই। হৃদয় ফিরেছেন ৩৬ বলে ২২ রানে। পরের ওভারে আবার বোলিংয়ে এসে প্রথম বলেই রিয়াদকে ফেরান এই লঙ্কান পেসার। অফ স্টাম্পের বাইরের ভালো চ্যানেলের ডেলিভারি, মাহমুদউল্লাহ খোঁচা দিয়েছেন তাতে। ৪ বলে ১ রান করেই আউট তিনি। ৪ উইকেট হারিয়ে এবার চাপে স্বাগতিকরা। 


বাংলাদেশ ২৫ ওভারে ১২৫/৪ (তানজিদ তামিম ৮৪* ও মুশফিকুর রহিম ৩*)


শতক পেরোল বাংলাদেশ


পার্ট টাইমার আসালাঙ্কাকে স্লগ করে চার মেরেছেন তানজিদ। ওই চারে বাংলাদেশ পেরিয়ে গেছে ১০০ রান, ২১তম ওভারে। এরপর ক্রিজ ছেড়ে বেরিয়ে এসেছিলেন তানজিদ, যদিও ঠিকোঠাক মারতে পারেননি। মাঝে একটু চুপচাপ থাকার পর আবার ঝাঁজ তানজিদের ব্যাটিংয়ে। ২১ ওভার শেষে ২ উইকেটে টাইগারদের সংগ্রহ ১০৪ রান। তানজিদ তামিম ৬৬ বলে ৬৭ ও তাওহীদ হৃদয় ৩৩ বলে ২২ রানে ব্যাট করছেন।

কনকাশনে সুযোগ পেয়েই ফিফটি তানজিদের

শুরুতে একাদশেই ছিলেন না তানজিদ হাসান তামিম। সৌম্য সরকারের চোটে কনকাশন সাব হিসেবে একাদশে সুযোগ পান তিনি। আর দলে সুযোগ পেয়েই যেন জ্বলে উঠছেন বাঁহাতি এই ব্যাটার। সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে লঙ্কানদের দেওয়া ২৩৬ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে ৫১ বলে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় ফিফটির দেখা পেলেন তিনি। ইনিংসে ৬টি চার ও ২টি ছক্কা হাঁকিয়েছেন এই তরুণ তুর্কি।

তানজিদের মাইলফলকে জয়ের পথে এগোচ্ছে বাংলাদেশ। তাকে যোগ্য সঙ্গ দিচ্ছেন তাওহিদ হৃদয়। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বাংলাদেশের সংগ্রহ ১৬ ওভারে ২ উইকেটে ৭৮ রান। তানজিদ হাসান তামিম ৫২ বলে ৫০ ও তাওহিদ হৃদয় ১৭ বলে ১৩ রানে ব্যাট করছেন। সিরিজ জয়ে বাংলাদেশের আরও দরকার ১৫৮ রান, হাতে আছে ৩৪ ওভার ও ৮ উইকেট। 



লাহিরু কুমারার জোড়া আঘাত


ওপেনিংয়ে নতুন জুটিতেই পঞ্চাশ রানের জুটির দেখা পেয়েছিল বাংলাদেশ। তানজিদ হাসান তামিম সাবলীল ব্যাট চালালেও ধুকছিলেন আরেক ওপেনার এনামুল হক বিজয়। লাহিরু কুমারার ফুললেংথের বলে ড্রাইভ করতে গিয়ে আভিষ্কা ফার্নান্দোর হাতে ক্যাচ দিয়ে বসেন তিনি। ২২ বলে ১ বাউন্ডারিতে ১২ রান করেন তিনি। এরপর টিকতে পারলেন না নাজমুল হোসেন শান্ত। কুমারার বেরিয়ে যাওয়া বলে ব্যাট ছুড়লেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। শরীর থেকে বেশ দূরে ছিল বল। ব্যাটের কানায় লেগে উইকেটকিপার কুশল মেন্ডিসের গ্লাভসবন্দী হন তিনি। এ আউট নাজমুলকে পোড়ানোর কথা বেশ কিছুক্ষণ। ৫০ থেকে ৫৬ রানের মধ্যেই দ্রুত ২ উইকেট নিয়ে লড়াইয়ে শ্রীলঙ্কা।


সৌম্যর কনকাশন বদলি তানজিদ তামিম, হাসপাতালে জাকের


সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে শ্রীলঙ্কার দেওয়া ২৩৬ রানের লক্ষ্যে এনামুল হক বিজয়ের সঙ্গে ওপেন করতে নেমেছেন তানজিদ হাসান তামিম। বিজয় একাদশে থাকলেও তানজিদ এসেছেন সৌম্য সরকারের কনকাশন বদলি হিসেবে। লঙ্কানদের ইনিংসে ফিল্ডিংয়ের সময় চোট পেয়েছিলেন সৌম্য। তখন পায়ে লেগেছে মনে হলেও লেগেছে আসলে কাঁধে। কনকাশনের লক্ষণ থাকায় সৌম্যর আর ব্যাটে নামার সম্ভাবনা নেই। তাই তৃতীয় ওয়ানডেতে নতুন ওপেনিং জুটি নিয়েই নেমেছে টাইগাররা।


মাঠে নামার পর শ্রীলঙ্কান খেলোয়াড়দের অবশ্য আম্পায়ারদের সঙ্গে কথা বলতে দেখা গেছে। এদিকে হাসপাতালে নেওয়া হচ্ছে ফিল্ডিংয়ের সময় এনামুলের সঙ্গে সংঘর্ষের পর মাঠ ছাড়া জাকের আলী অনিককে। বাউন্ডারি লাইনে ইনজুরিতে পড়া সৌম্যর বদলি হিসেবে ফিল্ডিংয়ে নেমেছিলেন তিনি। দ্বিতীয় ইনিংসে মাঠে নেই আম্পায়ার রিচার্ড কেটেলবোরোও। প্রথম ইনিংসে একটু খোঁড়াচ্ছিলেন। জানা গেছে, অতিরিক্ত গরমে অসুস্থ হয়ে পড়েছেন তিনি। অন ফিল্ড আম্পায়ার হিসেবে শরফুদ্দৌলার সঙ্গে এসেছেন রিজার্ভ আম্পায়ার তানভীর আহমেদ।


লিয়ানাগের সেঞ্চুরিতে লঙ্কানদের মাঝারি পুঁজি

জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে জানুয়ারিতে জানিথ লিয়ানগের অভিষেক৷ এখন অবধি তিন মাসে খেলেছেন নয়টি ওয়ানডে, ব্যাট করেছেন ছয়টিতে। এর মাঝে চারটি পঞ্চাশোর্ধ ইনিংস। আজ ধ্বংসস্তূপে দাঁড়িয়ে পেয়েছেন ক্যারিয়ারের প্রথম শতক। চট্টগ্রামে প্রথম ও দ্বিতীয় ওয়ানডের মতো আজ শিশির নিয়ে শঙ্কা নেই। তবে অঘোষিত ফাইনালে জানিথের সেঞ্চুরিতে লড়াকু পুঁজি পেয়েছে শ্রীলঙ্কা। 

তৃতীয় ওয়ানডে তথা সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে ২৩৬ রানের লক্ষ্য পেয়েছে বাংলাদেশ।

টাইগার তোপ সামলে লিয়ানাগের ফিফটি

প্রথম ম্যাচে গুরুত্বপূর্ণ ফিফটি করেছিলেন, যদিও দল জেতেনি শেষ পর্যন্ত। আজ সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচেও ফিফটি পেলেন জানিথ লিয়ানাগে। ৭৪ রানে ৪ উইকেট পড়ে যাওয়ার পর নেমেছিলেন। টাইগার বোলাররা আরও ৩ উইকেট তুলে নিলেও একপ্রান্তে লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি, ৬৫ বলে পূর্ণ করলেন ৫০।

৫ ম্যাচের ওয়ানডে ক্যারিয়ারে যা তৃতীয়। শ্রীলঙ্কা ৪২ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে করেছে ১৭৭ রান। ব্যাট হাতে লিয়ানাগে ৫৭ ও মাহেশ থিকশানা ৬ রানে ব্যাট করছেন। লঙ্কানরা ইনিংসকে কত দূর যেতে পারবে, প্রশ্ন সেটিই।

৭ উইকেট নেই লঙ্কাদের

টাইগার তোপে ধুঁকছে শ্রীলঙ্কা। স্কোরবোর্ডে ১৩৭ রানে তোলার আগেই ষষ্ঠ উইকেট হারায় সফরকারীরা। সবশেষ দেড়শ পেরিয়ে যোগ হয়েছে আরেকটি উইকেট। মেহেদী হাসান মিরাজের ঘূর্ণিতে দুনিথ ভেল্লাগে সাজঘরে ফেরার পর বেশি সময় টিকতে পারেননি ভানিদু হাসারাঙ্গা। ১৫৪ রানে সপ্তম উইকেট হিসেবে হাসারাঙ্গাকে ফিরিয়েছেন মিরাজ।

তার আগে দলীয় ১১৭ রানের মাথায় পঞ্চম উইকেট হারায় লঙ্কানরা। মোস্তাফিজুর রহমানের বলে উইকেটের পেছনে মুশফিকুর রহিমের হাতে ক্যাচ দেন লঙ্কানদের আশা হয়ে থাকা চারিথ আসালঙ্কা। ৪৬ বলে ৫ চারে ৩৭ রান করে যান তিনি। এখন অবধি দুটি করে উইকেট শিকার করেছেন মিরাজ, তাসকিন ও মোস্তাফিজ। একটি শিকার রিশাদের। 

লঙ্কানদের চাপ বাড়ালেন রিশাদ

স্কোরবোর্ডে ৪৩ রান তুলতেই তিন উইকেট হারিয়ে বসেছিল শ্রীলঙ্কা। তিন টপ অর্ডার ব্যাটার হারিয়ে যখন ধুঁকছিল তখন দলকে সামনে থেকে টানছিলেন কুশল মেন্ডিস। তবে রিশাদ হোসেন বেশিদূর যেতে দেননি লঙ্কান অধিনায়ককে। কুশলকে ফিরিয়ে আবারও চাপ বাড়িয়েছে বাংলাদেশ। দলীয় ৮০ রানে চার উইকেট হারিয়েছে শ্রীলঙ্কা। 

এসেই ফিজের আঘাত

 প্রথম দুই ওয়ানডেতে সুযোগ পাননি। তরুণ পেসার তানজীম হাসান সাকিব ইনজুরিতে সুযোগ মেলে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ ওয়ানডেতে। পাওয়ার প্লেতে বোলিংয়ে এসে দ্বিতীয় বলেই ফেরান সাদিরা সামারাবিক্রমাকে। লেন্থ বল ডিফেন্ড করতে যেয়ে খোঁচা দিয়ে বসেন সামারাবিক্রমা। তাতেই ভাঙে আরেকটি লঙ্কান প্রতিরোধ।

তাসকিনের জোড়া আঘাতে ধুঁকছে শ্রীলঙ্কা

ইনিংসের দ্বিতীয় ওভারে উইকেট এনে দেন তাসকিন আহমেদ। ফেরান আগের ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান পাথুম নিশাঙ্কাকে। বল ডিফেন্ড করতে গিয়ে পায়ে লাগিয়ে বসেন লঙ্কান ওপেনার, জোরালো আবেদনে সাড়া দেন আম্পায়ার। রিভিউ নিতে যেয়েও নেননি শেষ পর্যন্ত। নিলে হয়তো ফল ভিন্ন হতো। ১ রানে ফেরেন নিশাঙ্কা। 

আরেক ওপেনার আভিস্কা ফার্নান্দোকে পরের ওভারে এসেই ফিরিয়েছেন তাসকিন। তিনি যোগ করতে পেরেছেন ৪ রান। এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত শ্রীলঙ্কা ২ ওপেনার হারিয়ে ধুঁকছে। চট্টগ্রামে সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে দারুণ শুরু পাওয়া বাংলাদেশ ৫ ওভার শেষে দিয়েছে ১৮ রান। লঙ্কানদের ইনিংস টানছেন অধিনায়ক কুশল ও সাদিরা সামারাবিক্রমা।

লঙ্কান দলে এক পরিবর্তন

চোটে পড়ে ছিটকে যাওয়া পেসার দিলশান মাদুশঙ্কার জায়গায় শ্রীলঙ্কা খেলাচ্ছে স্পিনার মহেশ থিকশানাকে। শ্রীলঙ্কা দলে একটিই পরিবর্তন। চট্টগ্রামে স্পিনার বেশি নিয়ে খেলবে শ্রীলঙ্কা।

শ্রীলঙ্কার একাদশ
কুশল মেন্ডিস (অধিনায়ক), আভিস্কা ফার্নান্দো, পাথুম নিশাঙ্কা, সাদিরা সামারাবিক্রমা, চারিত আসালাঙ্কা (সহঅধিনায়ক), জানিত লিয়ানাগে, ভানিদু হাসারাঙ্গা, দুনিত ভেল্লালাগে, মহেশ থিকশানা, প্রমোদ মাদুশান ও লাহিরু কুমারা।

একাদশে লিটনের বদলি বিজয়

বাংলাদেশ নেমেছে একাদশে তিন পরিবর্তন নিয়ে। বাজে ফর্মের কারণে বাদ পড়া লিটন দাসের জায়গায় খেলছেন এনামুল হক বিজয়। ইনজুরিতে ছিটকে যাওয়া তানজীম হাসান সাকিবের জায়গায় ফিরেছেন মোস্তাফিজুর রহমান। স্পিনার তাইজুল ইসলামের পরিবর্তে একাদশে সুযোগ পেয়েছেন রিশাদ হোসেন।

বাংলাদেশ একাদশ
নাজমুল হোসেন শান্ত (অধিনায়ক), এনামুল হক বিজয়, মুশফিকুর রহিম, তাওহীদ হৃদয়, সৌম্য সরকার, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মেহেদী হাসান মিরাজ, রিশাদ হোসেন, শরীফুল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ ও মোস্তাফিজুর রহমান।

আরেকবার টস হারলেন শান্ত

তৃতীয় ওয়ানডেতেও টস ভাগ্য সহায় হয়নি নাজমুল হোসেন শান্তর৷ শ্রীলঙ্কার অধিনায়ক কুশল মেন্ডিস আজ শেষ ও অঘোষিত ফাইনালে রূপ নেওয়া ম্যাচে টস জিতেছেন৷ আগে ব্যাটিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন সফরকারী অধিনায়ক।

সিরিজের আগের দুটি ম্যাচ দিবারাত্রির হলেও এটি হচ্ছে সকাল ১০টা থেকে। চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ নেই শিশির আশঙ্কা। সিরিজ এখন ১-১ সমতায়।

আজ নেই ‘শিশির শঙ্কা’

সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে শিশিরের প্রভাব ছিল। শ্রীলঙ্কা আগে ব্যাটিং করে ২৫৫ রান করে। সেই রান সহজেই ছুঁয়ে ফেলে বাংলাদেশ। লঙ্কানরা পরে বোলিং করে শিশিরের কারণে সমস্যায় পড়েছিল। গত ম্যাচেও পরে বোলিং করা দলের একই অবস্থা। তবে দ্বিতীয়বার ভোগে শান্তরা।

আগে ব্যাটিং করে লঙ্কানদের ২৮৭ রানের লক্ষ্য দেয়। সেটিও সহজেই ছুঁয়ে ফেলে শ্রীলঙ্কা। তৃতীয় ম্যাচটি হবে দিনে। সন্ধ্যার মধ্যেই খেলা শেষ হয়ে যাবে। ফলে শিশির নিয়ে ভয় নেই কারও।

হারানো সুর খুঁজছেন শান্তরা

বাংলাদেশের ভরাডুবি হয়েছিল ভারতের মাটিতে আয়োজিত বিশ্বকাপে। তা ছাড়া ২০২৩ সালের পর থেকে ৩২ ম্যাচ খেলে জিতেছে কেবল ১১টিতে। অথচ ওয়ানডে সংস্করণ ধরা হয় বাংলাদেশ দলের শক্তির জায়গা। সেই ওয়ানডেতেও বর্তমান পরিসংখ্যানের গ্রাফ নিচের দিকে। ২০১৯ থেকে ২০২২ সাল অবধি ৪৮ ম্যাচ খেলা বাংলাদেশ জিতেছিল ২৮ ম্যাচে। 

২০২৩ সালে আয়ারল্যান্ডের বিপক্ষে জয়ের পর বাংলাদেশ হেরেছে তিনটি ওয়ানডে সিরিজ (আফগানিস্তান, নিউজিল্যান্ড (দেশে ও দেশের বাইরে)। তবে পুরোনো কথা ভুলতে চান শান্তরা। সিরিজ শুরুর আগে যেমন টাইগার অধিনায়কের কণ্ঠে প্রত্যয় ঝরেছিল তেমনি মেহেদীও বললেন, নিজেদের পছন্দের ফরম্যাটে ভালো খেলব।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা