× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

সীমানা ছাড়িয়ে

মধ্যপ্রাচ্যের সংকট

সাদেক হালিম

প্রকাশ : ০৫ মার্চ ২০২৪ ০৯:১৮ এএম

মধ্যপ্রাচ্যের সংকট

বিগত ৪০ বছর ধরে মধ্যপ্রাচ্য পাজল বা ধাঁধা হয়েই রয়েছে। কিন্তু সেই ধাঁধার অবসান যেন ঘটতে শুরু করেছে। পুরোনো যে মঞ্চের ভিত্তিতে মধ্যপ্রাচ্যকে আমরা বিচার করে এসেছি তার ভিন্ন প্রেক্ষাপট সামনে উদীয়মান। এই ভূখণ্ডের কোনো কোনো অংশে সংঘর্ষ ক্রমেই জটিল আকার ধারণ করেছে। সম্প্রতি গাজা উপত্যকার রাফাহ রিফিউজি ক্যাম্পে ইসরায়েলি হামলার ভয়াবহ রূপ দেখে তা-ই ফের প্রতীয়মান হলো। উল্লেখ্য, রাফাহ শরণার্থী শিবির লাল সীমানার অন্তর্ভুক্ত। এর একাংশ মিসর এবং কায়রো প্রশাসন এই সংঘর্ষ সামলানোর ক্ষেত্রে বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ নিয়েছে। নেতানিয়াহু প্রশাসনেও বিভাজন লক্ষ করা গেছে এবং ঐতিহাসিক ক্যাম্প ডেভিড চুক্তির ব্যত্যয় ঘটার লক্ষণ পাওয়া গেছে। ইসরায়েলে শীর্ষ নেতারা যতই বেপরোয়া হোন না কেন, মিসরের লাল সীমানা অতিক্রম করার চিন্তা তারাও করবেন না। বরং কায়রো প্রশাসনের সঙ্গে তারা সমঝোতার পথে হাঁটবেন। যদি তা না করা হয়, তাহলে এর নেতিবাচকতা সামাল দেওয়া কারও পক্ষেই সম্ভব হবে না।

আরব-ইসরায়েল যুদ্ধ শুরু হলে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র থেকে ইসরায়েল কোনো সহযোগিতা পাবে না। দেশটিতে প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের তোড়জোড় চলছে। ওয়াশিংটন ইতোমধ্যে ফিলিস্তিন রাষ্ট্রের প্রতি সংহতি জানিয়েছে এবং বেপরোয়া হামলায় ইসরায়েলকে সহযোগিতা না করার ইঙ্গিত দিয়েছে। মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন ও নেতানিয়াহুর মধ্যকার সম্পর্কের অবনতিও ঘটতে শুরু করেছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রও সংকটকাল পার করছে। সংকটজনিত কারণে দেশটি ইতোমধ্যে মধ্যপ্রাচ্য থেকে নিজেদের গুটিয়ে ফেলছে। তা ছাড়া রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধে দেশটির সম্পৃক্ততা থাকায় মধ্যপ্রাচ্য থেকে তাদের মনোযোগ আগে থেকেই কমছিল।

ইসরায়েল-গাজা সংঘর্ষের প্রেক্ষাপট বদলাচ্ছে। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের সম্পৃক্ততাও কমছে। মধ্যপ্রাচ্যে কূটনৈতিক সম্পর্কোন্নয়নের বিষয়টি নির্বাচনের বছরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের প্রধান ভাবনা নয় বলেই প্রতীয়মান হচ্ছে। অন্যদিকে ইউরোপ তেল আবিবকে সহযোগিতা করবেÑ এমন কোনো লক্ষণ পাওয়া যাচ্ছে না। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধের অভিঘাত লোহিত সাগর অঞ্চলে পড়ায় ইউরোপের অর্থনৈতিক অবস্থাও মন্দার দিকে। ইসরায়েলের অন্যতম প্রধান সহযোগী ব্রিটেনও রাফায় অভিযানে কোনো সহযোগিতা করবে না। পরিস্থিতি আরও জটিল হয়ে উঠবে। কারণ জাতিসংঘের মহাসচিব নিজেও জানিয়েছেন, গাজায় ইসরায়েলের আগ্রাসন যুদ্ধাপরাধের শামিল। মধ্যপ্রাচ্য প্রসঙ্গে চীন ও রাশিয়ার অবস্থানও ইসরায়েলের পক্ষে নয়। ফলে নেতানিয়াহু নিজে জটিল অবস্থার মুখোমুখি হয়ে পড়েছেন।

রাফায় ইসরায়েলি অভিযান পরিচালিত হলে আঞ্চলিক শক্তি ইরান ভৌগোলিক রাজনীতি পরিচালনার সুযোগ পাবে। সম্ভবত তেহরান প্রশাসন দীর্ঘদিন ধরেই রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিকভাবে এই ভূখণ্ডকে পরিচালনার অপেক্ষা করছিল। গত তিন দশক ধরে ইসরায়েল ভূমধ্যসাগর তীরবর্তী দেশগুলোর সঙ্গে সম্প্রীতির সম্পর্ক গড়ে তোলার চেষ্টা করছিল। আরব দেশগুলোর সঙ্গে ইসরায়েলের দৃঢ় সম্পর্কও রয়েছে। ভুলে গেলে চলবে না, আরব সহযোগীদের সঙ্গেও ইসরায়েল কোনো শান্তি চুক্তি স্বাক্ষর করেনি। দেশটির সঙ্গে আরব দেশগুলোর বাণিজ্যিক ও কৌশলগত সম্পর্ক রয়েছে মাত্র। মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিতিশীল পরিবেশ তৈরি হলে তার প্রভাব ইসরায়েল-আরব দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের ওপরও পড়তে বাধ্য।

মধ্যপ্রাচ্য বিশ্বরাজনীতি ও অর্থনীতির জন্য বিশেষ গুরুত্ব বহন করে। গত বছরের সেপ্টেম্বরে দিল্লিতে মধ্যপ্রাচ্য, ইসরায়েল, ভারত ও ইউরোপে অর্থনৈতিক করিডোর চালুর যে পরিকল্পনা নেওয়া হয় সেটিও হুমকির মুখে পড়তে পারে। মিসরের লাল সীমান্ত অতিক্রম করলে এর পরিণতি কতটা ভয়াবহ হতে পারে তা এসব বিষয় থেকেই স্পষ্ট। আঞ্চলিক স্থিতিশীলতা নিশ্চিত করা ব্যতীত সংকট নিরসন সম্ভব নয়। নিরাপত্তার ক্ষেত্রে মধ্যপ্রাচ্যকে স্থায়ী সমাধানে পৌঁছতে হবে। গাজা-ইসরায়েল ক্রমেই ট্র্যাজেডির রূপ নিচ্ছে। মধ্যপ্রাচ্যে ক্ষমতার দ্বন্দ্ব ও আধিপত্যের করালগ্রাসে মর্মন্তুদ ঘটনা যেন না ঘটে এ বিষয়ে উদ্যোগী হয়ে উঠতে হবে। মধ্যপ্রাচ্য সংকট ইতিবাচক পরিণতি পাকÑ এমনটিই প্রত্যাশিত।

  • অধ্যাপক, হেলওয়ান বিশ্ববিদ্যালয়

ডেইলি নিউজ ইজিপ্ট থেকে সংক্ষেপিত অনুবাদ : আমিরুল আবেদিন

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা