× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

ঈদে দক্ষিণের ৪১ রুটে বিশেষ লঞ্চ

কেরানীগঞ্জ (ঢাকা) প্রতিবেদক

প্রকাশ : ২২ মার্চ ২০২৪ ১৫:৫৩ পিএম

আপডেট : ২২ মার্চ ২০২৪ ১৬:২০ পিএম

৬ এপ্রিল ঢাকার সদরঘাট নৌ-টার্মিনাল থেকে বিশেষ লঞ্চ চলাচল শুরু করবে। এজন্য ইতোমধ্যে ১৩০টি লঞ্চ প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রবা ফটো

৬ এপ্রিল ঢাকার সদরঘাট নৌ-টার্মিনাল থেকে বিশেষ লঞ্চ চলাচল শুরু করবে। এজন্য ইতোমধ্যে ১৩০টি লঞ্চ প্রস্তুত রাখা হয়েছে। প্রবা ফটো

পবিত্র রমজানের শেষে আসছে ঈদুল ফিতর। চাঁদ দেখার ওপর ভিত্তি করে ১০ বা ১১ এপ্রিল দেশব্যাপী ঈদ উদযাপিত হবে। ঈদযাত্রায় মানুষের চাপ সামাল দিতে দক্ষিণাঞ্চলের নৌরুটে বিশেষ লঞ্চের ব্যবস্থা করেছে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ)।

বিআইডব্লিউটিএ সূত্রে জানা গেছে, ৬ এপ্রিল ঢাকার সদরঘাট নৌ-টার্মিনাল থেকে বিশেষ লঞ্চ চলাচল শুরু করবে। এজন্য ইতোমধ্যে ১৩০টি লঞ্চ প্রস্তুত রাখা হয়েছে। দক্ষিণাঞ্চলের ৪১টি রুটে এসব লঞ্চ চলাচল করবে। সেই সঙ্গে অগ্রিম টিকিট বিক্রির সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিআইডব্লিউটিএর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগ।

বিআইডব্লিউটিএর নৌ-নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা বিভাগের ঢাকা নদীবন্দরের যুগ্ম পরিচালক ইসমাইল হোসেন বলেন, ‘ঈদে নদীপথে ঘরমুখী মানুষের নিরাপদ যাত্রা নিশ্চিতে বিশেষ লঞ্চ চলাচলের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত হয়েছে। অগ্রিম টিকিট বিক্রির বিষয়ও সভায় আলোচনা হয়েছে, তবে দিন তারিখ এখনও ঠিক হয়নি। অল্প কিছু দিনের মধ্যে তা জানানো হবে।‘

শুক্রবার (২২ মার্চ) সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, দক্ষিণাঞ্চলগামী বেশ কয়েকজন যাত্রী সদরঘাট টার্মিনালে এসে লঞ্চের কেবিনের অগ্রিম টিকিটের জন্য ঘুরছে। তারা টার্মিনালের পন্টুনে ভেড়ানো লঞ্চগুলোতে গিয়ে অগ্রিম টিকিটের খোঁজ করে। ঢাকার শ্যামলি  থেকে লঞ্চের কেবিনের অগ্রিম টিকিট কাটতে সদরঘাট টার্মিনালে আসেন মেহেদী হাসান। তিনি বলেন, ‘৮ এপ্রিল গলাচিপায় গ্রামের বাড়ি যাব। তাই ভিড় এড়াতে আগে থেকেই লঞ্চের অগ্রিম টিকিট বুকিং দিতে এসেছি। এসে শুনলাম, এখনও লঞ্চের কেবিনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়নি। শিগগিরই অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে। এ কথা শুনে ফিরে আসি। ভাবছি, দুই থেকে তিন দিন পর আবার সদরঘাট আসব।’

কমলাপুর থেকে আসা নাসরিন আক্তার বলেন, ‘ঈদে প্রতিবছর পরিবার নিয়ে গ্রামের বাড়িতে একসঙ্গে ঈদ করি। লঞ্চের অগ্রিম টিকিট বিক্রির ঘোষণার পর টিকিট নিতে এলে অনেক ভিড় থাকে। পাশ দিয়ে যাচ্ছিলাম, তাই খোঁজখবর নিতে আসলাম অগ্রীম টিকিট পাওয়া যায় কি না। সেই কথা ভেবে আগেভাগে টিকিট নিতে এসেছি। জানতে পারি, কিছু দিন পর অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হবে।‘

এমভি টিপু-৭ লঞ্চের কর্মচারী দিদার হোসেন বলেন, ‘এখনও লঞ্চের প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু হয়নি। কবে থেকে বিক্রি হবে, সে ব্যাপারে মালিকপক্ষ জানে।’

লঞ্চমালিক পক্ষের ভাষ্য, প্রথম ও দ্বিতীয় শ্রেণির কেবিনের যাত্রীর চাপ কম। যারা লঞ্চে নিয়মিত যাতায়াত করে, সাধারণত তারাই অগ্রিম টিকিট সংগ্রহ করে থাকে। অগ্রিম টিকিট ছাড়ার ব্যাপারে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।’

অভ্যন্তরীণ নৌ-চলাচল সংস্থার ঢাকা নদীবন্দরের যুগ্ম পরিচালক ও এমভি অভিযান-১০ লঞ্চের মালিক হামজা লাল বলেন, ‘যাত্রীদের ওপর নির্ভর করে বিশেষ লঞ্চের ব্যবস্থা করা হবে। সরকার নির্ধারিত ভাড়া যাত্রীদের কাছ থেকে নেওয়া হবে। ইতোমধ্যে যাত্রীরা লঞ্চের অগ্রিম টিকিটের জন্য আসছে। তবে অগ্রিম টিকিট বিক্রির বিষয়ে এখনও কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।’

বিআইডব্লিউটিএর পিআরও মোবারক হোসেন মজুমদার জানান, ঈদের পাঁচ দিন আগে ও পাঁচ দিন পর পর্যন্ত টার্মিনালে লঞ্চের মাধ্যমে কোনো মোটরসাইকেল যাতায়াত করতে পারবে না। এ সময় নদীতে কোনো বাল্কহেড চলতে পারবে না। যাত্রীবাহী লঞ্চ চলাচল করা সব নৌপথে ৬ এপ্রিল থেকে বিশেষ লঞ্চ চলাচল করবে। চাহিদা অনুযায়ী ঈদের পাঁচ দিন পর পর্যন্ত এ বিশেষ লঞ্চ চলবে।

আসন্ন ঈদে লঞ্চে যাতায়াতকারীদের জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) দেখানো ও সংরক্ষণ করা বাধ্যতামূলক করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিশেষ করে, কেবিনে যাতায়াতকারীদের এনআইডি সংরক্ষণ করতে লঞ্চমালিক-শ্রমিকদের নির্দেশনা দেওয়া হয়।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা