× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

বাংলাদেশের শর্তহীন অকৃত্রিম বন্ধু ভারত : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

প্রকাশ : ১২ মার্চ ২০২৪ ২১:৫০ পিএম

আপডেট : ১২ মার্চ ২০২৪ ২২:১০ পিএম

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। ফাইল ফটো

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। ফাইল ফটো

মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারতের সাহায্যের কথা তুলে ধরে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, ভারত যেভাবে সাহায্য করেছে সেভাবে অন্য কোনো দেশ কারও জন্য করেনি। বাংলাদেশের শর্তহীন অকৃত্রিম বন্ধু ভারত। বাংলাদেশের প্রয়োজনে ভারত সব সময় পাশে থেকেছে। বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বিরাজমান এই সম্পর্ক ভবিষ্যতেও অব্যাহত থাকবে।

মঙ্গলবার (১২ মার্চ) বিকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নবাব নওয়াব আলী চৌধুরী সিনেট ভবন মিলনায়তনে বাংলাদেশ থেকে ভারতীয় সৈন্য প্রত্যাহারের ৫২বছর পূর্তি উদযাপন উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম বজলুর রহমান ফাউন্ডেশন যৌথভাবে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

অনুষ্ঠানের শুরুতে ভারত ও বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত পরিবেশন করা হয়। পরে মুক্তিযুদ্ধে ভারতের অবদান ও সৈন্য প্রত্যাহারের দৃশ্য তুলে ধরতে একটি প্রামাণ্যচিত্র প্রদর্শন করা হয়। এতে মুক্তিযুদ্ধের সময় ভারত কীভাবে বাংলাদেশকে সাহায্য করেছে, তা ফুটিয়ে তোলা হয়। পরে মুক্তিযুদ্ধে শহীদ ও ভারতের মিত্রবাহিনীর শহীদ সদস্যদের স্মরণে দাঁড়িয়ে এক মিনিট নীরবতা পালন করা হয়। 

আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘পাকিস্তান জন্মের পর থেকে আমাদের সব কেড়ে নিচ্ছিল, সর্বশেষ তারা আমাদের ভাষাটাও কেড়ে নিতে চেয়েছিল। মাইলের পর মাইল মানুষের বাড়িঘর পুড়িয়ে দেওয়ার দৃশ্য আমরা দেখেছি। মানুষকে নানা নির্যাতনের শিকার হয়ে পালিয়ে যেতে দেখেছি। দুয়েকজন নয়, কোটি-কোটি মানুষ পাশের দেশ ভারতে আশ্রয় নিয়েছিলাম। সে সময় ভারতের মানুষ যদি আশ্রয় না দিত, তাহলে হয়তো ইতিহাসটা ভিন্ন হতে পারত। পৃথিবীর অনেক দেশেই অন্য দেশের আর্মি গিয়ে স্বাধীন করে দিয়েছে, কিন্তু ভারতের মতো আনকন্ডিশনাল ফ্রেন্ডশিপ অন্য কোনো দেশ দেখাতে পারেনি।’ 

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ইশারায় তৎকালীন ভারতের প্রধানমন্ত্রী ইন্দিরা গান্ধী ১৯৭২ সালের ১২ মার্চ স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ থেকে ভারতীয় সৈন্য প্রত্যাহার করেন। পৃথিবীর ইতিহাসে স্বল্পতম সময়ের মধ্যে সৈন্য প্রত্যাহারের এ ঘটনা বিরল। এটি বঙ্গবন্ধুর বিশাল ব্যক্তিত্ব ও দূরদর্শিতার বহিঃপ্রকাশ। বঙ্গবন্ধু ও মিসেস গান্ধীর মধ্যে পারস্পরিক শ্রদ্ধা, বিশ্বাস ও গভীর বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের কারণেই দ্রুততম সময়ের মধ্যে সেনা প্রত্যাহার করা সম্ভব হয়েছিল।’ 

ভারতীয় হাইকমিশনার প্রণয় কুমার ভার্মা বলেন, ‘বাংলাদেশের মহান মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাসে ভারতীয় সৈন্য প্রত্যাহারের ঘটনা দুই দেশের বন্ধুত্ব ও সম্প্রীতির এক উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত। ভারত ও বাংলাদেশের এই সম্প্রীতি, বন্ধুত্ব ও পারস্পরিক সহযোগিতা বর্তমানে অনন্য উচ্চতায় পৌঁছেছে।’

ভারতীয় সৈন্য প্রত্যাহারের ৫২ বছর পূর্তি উদযাপন অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যকে ধন্যবাদ জানান তিনি। 

উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল বাংলাদেশ ও ভারতের মধ্যে বিরাজমান ঐতিহাসিক, রাজনৈতিক ও সাংস্কৃতিক বন্ধনের চিত্র তুলে ধরে বলেন, ‘বাংলাদেশের স্বাধীনতার জন্য ভারতের অনেক সৈন্য জীবন দিয়েছে। দুই দেশের জনগণের মধ্যে বিরাজমান মৈত্রীর এই বন্ধন চিরদিন অটুট থাকবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের দূরদর্শী নেতৃত্ব ও অসাধারণ দক্ষতার কারণেই অল্পসময়ের মধ্যে বাংলাদেশ থেকে ভারতীয় সৈন্য প্রত্যাহার করা হয়। এর মাধ্যমে আমরা মুক্তিযুদ্ধের প্রতিটি পর্ব সফলতার সঙ্গে উত্তীর্ণ হই।’

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এএসএম মাকসুদ কামাল। আরও বক্তব্য দেন সেনা সদর দপ্তরের কোয়ার্টার মাস্টার জেনারেল লে. জেনারেল মো. মজিবুর রহমান ও ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর (শিক্ষা) অধ্যাপক ড. সীতেশ চন্দ্র বাছার। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন স্বাধীনতা পদকপ্রাপ্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা লে. কর্নেল (অব.) সাজ্জাদ আলী জহির (বীরপ্রতীক, পদ্মশ্রী) এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ইতিহাস বিভাগের অধ্যাপক ড. আশফাক হোসেন।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা