× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

শ্রমিক অধিকার হরণ হলে নিষেধাজ্ঞা দেবে যুক্তরাষ্ট্র

প্রবা প্রতিবেদন

প্রকাশ : ১৭ নভেম্বর ২০২৩ ২১:৫১ পিএম

আপডেট : ১৭ নভেম্বর ২০২৩ ২২:১৬ পিএম

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন। সংগৃহীত ফটো

যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন। সংগৃহীত ফটো

বিশ্বব্যাপী শ্রম অধিকার রক্ষায় নতুন পদক্ষেপ নিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। বিশ্বজুড়ে যারা শ্রম অধিকার হরণ করবে, তাদের ওপর নানা ধরনের নিষেধাজ্ঞা দেবে মার্কিন প্রশাসন। প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের এমন উদ্যোগকে ঐতিহাসিক আখ্যা দিয়েছে হোয়াইট হাউস। পররাষ্ট্র দপ্তর বলছে, শ্রমিক অধিকার ও শ্রম মানোন্নয়নে কাজ করা মার্কিন কূটনীতির কেন্দ্রীয় অংশ। শ্রমিক স্বার্থ রক্ষায় বাইডেন প্রশাসনের নতুন বিদেশনীতির মাধ্যমে শ্রম অধিকার হরণকারীদের জবাবদিহির আওতায় আনা হবে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট শ্রমিক অধিকার রক্ষায় নতুন একটি স্মারকে স্বাক্ষর করেন বৃহস্পতিবার (১৬ নভেম্বর)। পরে ক্যালিফোর্নিয়ায় সান ফ্রান্সিসকোর একটি হোটেলে শ্রমিক নেতাদের সামনে বিস্তারিত তুলে ধরেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন। সেখানে এশিয়া-প্যাসিফিক ইকোনমিক কো-অপারেশনের (অ্যাপেক) নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের পাশাপাশি সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।

ব্লিঙ্কেনের বার্তা

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেন, ’শ্রমিকদের অধিকার ও তাদের শ্রম মানোন্নয়ন যুক্তরাষ্ট্রের কূটনীতির পাশাপাশি পররাষ্ট্র দপ্তরেরও কার্যক্রমের মূল বিষয়। বিশ্বজুড়ে যারা শ্রমিকদের হুমকি-ধমকি দেবে, ভয় দেখাবে, শ্রম ইউনিয়নের নেতা, শ্রম অধিকারের পক্ষে কাজ করা ব্যক্তি ও শ্রম সংগঠনের ওপর আক্রমণ করবে, তাদের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা, বাণিজ্যিক ও ভিসা নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হবে।

এ সময় মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বাংলাদেশের পোশাকশ্রমিক অধিকারকর্মী কল্পনা আক্তারের উদাহরণ তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ’আমরা কল্পনা আক্তারের মতো মানুষদের পাশে থাকতে চাই; যিনি বলেন, তিনি এখনও জীবিত আছেন, কারণ আমেরিকার দূতাবাস তার পক্ষে কাজ করেছে। শ্রম অধিকার আমেরিকার জাতীয় নিরাপত্তা এবং বৈদেশিক নীতির চাবিকাঠি। এটা শুধুই দেশের অভ্যন্তরীণ বিষয় নয়। এটা আমাদের জাতীয় নিরাপত্তা ও বৈদেশিক নীতির বিষয়।’

অ্যান্টনি ব্লিঙ্কেন বলেন, ’আন্তর্জাতিক মানের শ্রম অধিকার নিশ্চিত করার জন্য যুক্তরাষ্ট্র বিভিন্ন দেশের সরকার, শ্রমিক ও শ্রমিক সংগঠন, বেসরকারি খাত ও নাগরিক সমাজের সঙ্গে কাজ করবে। পৃথিবীর সব দেশে নিয়োজিত আমাদের রাষ্ট্রদূত ও দূতাবাসে কর্মরত ব্যক্তিরা শ্রমিক ও শ্রমিক সংগঠনের সঙ্গে কাজ করবে, যাতে করে আমাদের কাজের মধ্যে তাদের আওয়াজ প্রতিফলিত হয়।’

তিনি বলেন, ’দক্ষতাসম্পন্ন শ্রমিকদের জন্য চাকরির সুযোগ বাড়ানোকে অগ্রাধিকার দিয়ে বিদেশে শ্রমিকদের অধিকার উন্নত করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল সরকারের সক্ষমতাকে বাড়ানো হবে। যুক্তরাষ্ট্র বিভিন্ন দেশের সরকার, জাতিসংঘ ও জি-২০-এর মতো বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে কাজ করবে, যাতে শ্রম অধিকার এবং শ্রম মানোন্নয়ন করা যায়। একই সঙ্গে জোরপূর্বক শ্রমে নিয়োজিত করার মাধ্যমে উৎপাদিত পোশাক আমদানি বন্ধ করবে যুক্তরাষ্ট্র। বৈদেশিকনীতি চালুর বিষয়ে এটি একটি বাস্তবিক ও সুনির্দিষ্ট পদক্ষেপ। এই বৈদেশিকনীতি সব আমেরিকানের পক্ষে কাজ করবে।’

যা বলছে হোয়াইট হাউস

এক বিবৃতিতে হোয়াইট হাউস জানিয়েছে, বাইডেন ইতিহাসের সবচেয়ে শ্রমবান্ধব প্রেসিডেন্ট। তিনি একটি টেকসই বৈশ্বিক অর্থনীতি গড়ে তোলার বিষয়ে অঙ্গীকারবদ্ধ। এটা শুধু যুক্তরাষ্ট্রের ভেতরেই নয়, বিশ্বের বিভিন্ন দেশেও বাস্তবায়ন করা হবে। শ্রমিক ও শ্রম সংগঠনগুলো গণতন্ত্রের মূল চাবিকাঠি। ইতিহাসের সর্বত্র, দক্ষিণ আফ্রিকার বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলন থেকে শুরু করে কমিউনিস্ট পোল্যান্ড, ব্রাজিলের সামরিক শাসন এবং মিয়ানমারের সেনা অভ্যুত্থানের ক্ষেত্রে ট্রেড ইউনিয়নগুলো গণতন্ত্রের পক্ষে নাগরিক আন্দোলনের মূল অস্ত্র হিসেবে কাজ করেছে। শ্রমিকদের সংগঠন করার অধিকার নিশ্চিত করার জন্য মার্কিন পদক্ষেপ শ্রমিকদের মতামতকে গুরুত্ব দেওয়ার মতো একটি জায়গা তৈরি করবে।

বিবৃতিতেও শ্রম অধিকার সংরক্ষণের বিষয়ে মার্কিন প্রশাসনের পাঁচ ধরনের কর্মপরিকল্পনার কথা তুলে ধরা হয়। এগুলো হচ্ছে-  আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃতি শ্রম অধিকার রক্ষা, শ্রমিকদের ক্ষমতায়ন, সংগঠনের অধিকার নিশ্চিত করতে কূটনীতি, অর্থনৈতিক অংশগ্রহণ ও বিদেশি সহায়তা ব্যবহার করা হবে; ট্রেড ইউনিয়নের নেতা, শ্রম অধিকারের পক্ষে কাজ করা ব্যক্তি এবং শ্রমিক সংগঠনগুলোর বিরুদ্ধে হুমকি, ভয় দেখানো ও সহিংসতার বিষয়ে দ্রুত এবং কার্যকরভাবে এগিয়ে আসা ও তা প্রতিরোধ করা; বৈশ্বিক শ্রম এজেন্ডা পরিচালনার জন্য ফেডারেল বিভাগ ও সংস্থাগুলোর সক্ষমতা আরও বাড়ানো; বৈশ্বিক শ্রম মানোন্নয়ন, শ্রম সংগঠন এবং আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত শ্রম অধিকারের পক্ষে কাজ করতে বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানগুলোর সঙ্গে কাজ করা এবং তাদের সঙ্গে জোট গঠন করা; আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত শ্রম অধিকার রক্ষা ও উন্নয়নে বাণিজ্যসংক্রান্ত ও অন্যান্য উপায় বাড়ানো।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা