× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

শিক্ষার্থীদের মাথায় চাপছে বাড়তি ফি

ইউছুব ওসমান, জবি

প্রকাশ : ১৬ মে ২০২৪ ১৩:৪৬ পিএম

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তর থেকে প্রদেয় ডকুমেন্টস ও সেবার জন্য ফি পুনর্নির্ধারণ করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। আগের চেয়ে বর্তমানে ফি বাড়বে ২০ থেকে ৫০ শতাংশ পর্যন্ত। এ ছাড়াও নতুন করে যুক্ত হচ্ছে বিভিন্ন ফি। এতে শিক্ষার্থীদের মধ্যে দেখা দিয়েছে তীব্র ক্ষোভ। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের এমন সিদ্ধান্ত দ্রুত বাতিলের দাবি জানিয়েছেন তারা।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, চলতি বছরের ২৭ মার্চ বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তর থেকে শিক্ষার্থীদের প্রদেয় ডকুমেন্টস ও সেবাসমূহের ফি পুনর্নির্ধারণের বিষয়ে অর্থ কমিটির একটি সভা অনুষ্ঠিত হয়। অর্থ কমিটির ৭৮তম এই সভায় পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তর প্রদেয় বিভিন্ন সেবার ফি বাড়িয়ে নতুন ফি নির্ধারণ এবং নতুন করে কয়েকটি খাতে ফি ধার্য করে সিন্ডিকেটে অনুমোদনের জন্য পাঠায়। গত ৩ এপ্রিল বিশ্ববিদ্যালয়ের ৯৫তম সিন্ডিকেটে এ বিষয়ে আলোচনা হয়। দ্রুতই যা সিদ্ধান্ত হিসেবে গৃহীত হবে। এমন হলে সেবা ভেদে বাড়তি ফি গুনতে হবে শিক্ষার্থীদের।

সিন্ডিকেটে উত্থাপিত প্রস্তাবনার নথিপত্রে দেখা গেছে, নতুন ফি-এর হার অনুযায়ী অনার্স/মাস্টার্সের মূল সনদের জন্য শিক্ষার্থীদের ফি গুনতে হবে ৫০০ টাকা। যা আগে ছিল ৪০০ টাকা। দ্বি-নকল ও ত্রি-নকলের ক্ষেত্রে আগে ৬০০ টাকা ফি থাকলেও এখন গুনতে হবে ৭০০ টাকা। এ ছাড়াও নতুন করে এমফিল/পিএইচডির মূল সনদ পেতে শিক্ষার্থীদের ১ হাজার টাকা দিতে হবে। এসবের দ্বি-নকল, ত্রি-নকল কিংবা সংশোধনের জন্যও সমপরিমাণ ফি পরিশোধ করতে হবে শিক্ষার্থীদের।

এ ছাড়াও অনার্স/মাস্টার্সের সাময়িক সনদের ক্ষেত্রে ২৫০ থেকে বেড়ে ৩০০ টাকা, সাময়িক সনদের দ্বি-নকল তুলতে ৩০০ টাকার বদলে গুনতে হবে ৫০০ টাকা। সংশোধনের জন্য আগের ২৫০ টাকার বদলে ফি ধরা হয়েছে ৩০০ টাকা। এমফিল/পিএচডির ক্ষেত্রে নতুন প্রস্তাবনা অনুযায়ী এই ফি-এর পরিমাণ ৫০০ টাকা। অনার্সের ট্রান্সক্রিপ্ট তুলতেও ৪০০ টাকার বদলে নতুন প্রস্তাবনায় করা হয়েছে ৫০০ টাকা। মাস্টার্সের ট্রান্সক্রিপ্ট উত্তোলন ফি ২৫০ থেকে বাড়িয়ে করা হচ্ছে ৩০০ টাকা। অনার্স/মাস্টার্সের বিভিন্ন সেমিস্টারের গ্রেডশিটের জন্য ৫০ টাকার বদলে এখন পরিশোধ করতে হবে দ্বিগুণ, ১০০ টাকা। এ ছাড়াও নম্বরপত্রের দ্বি-নকল ও ত্রি-নকল উত্তোলন করতে ৩০০ টাকা ফি বাড়িয়ে করা হয়েছে ৪০০ টাকা। প্রত্যয়নপত্রের জন্য ১০০ থেকে বেড়ে হবে ২০০ টাকা। এ ছাড়াও বিভিন্ন ডকুমেন্টস বিশ্ববিদ্যালয়ের সিলগালা করতে এখন বাড়িয়ে করা হচ্ছে ২০০ টাকা, যা আগে ছিল ১০০ টাকা।

পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক দপ্তরের বিভিন্ন সেবায় বাড়তি ফি নির্ধারণে প্রশাসনের এমন সিদ্ধান্তে ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন শিক্ষার্থীরা। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়কে ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে পরিণত করা হচ্ছে বলে অভিযোগ করছেন তারা। 

নাট্যকলা বিভাগের শিক্ষার্থী কিশোর সাম্য বলেন, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় একটি পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়। এখানে সরকার শিক্ষার্থীদের যাবতীয় শিক্ষা ব্যয় বহন করে। সেখানে ফি বাড়ানোর মতো সিদ্ধান্ত অত্যন্ত লজ্জাজনক। অনেক শিক্ষার্থীই যে সময়ে এসব কাগজপত্র তুলে তখন তারা চাকরির পরীক্ষা দেয়, আবেদন করে। সেখানে অনেক টাকা খরচ হয়ে যায়। এভাবে ফি বাড়ানো হলে তারা যাবে কোথায়? এখানে তো অধিকাংশই নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবার থেকে পড়তে আসে। এভাবে ফি-এর বোঝা চাপিয়ে দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় কী ব্যবসা করতে চায় কি না, সেটাও একটি প্রশ্ন।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক (ভারপ্রাপ্ত) জহুরুল ইসলাম বলেন, ‘এ বিষয়ে আমি টেলিফোনে কোনো কথা বলতে পারব না। আপনি রেজিস্ট্রারের সঙ্গে কথা বলুন।’ 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রকল্যাণ পরিচালক ড. জিএম আল আমিন বলেন, বর্তমানে যে ফি নির্ধারণ করা আছে সেটা অনেক আগের। বর্তমানে কাগজ-কালি সবকিছুরই দাম বেড়েছে। তাই ফি-এর পরিমাণ কিছুটা বৃদ্ধি করা হচ্ছে। তবে সেটা শিক্ষার্থীদের সহনীয় পর্যায়েই রাখা হচ্ছে।

জানতে চাইলে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. আইনুল ইসলাম বলেন, সরকার থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ের আয় বাড়ানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। সেজন্য ফি বাড়ানোর পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এখনও এটি পাস হয়নি। সিন্ডিকেটে প্রস্তাব উত্থাপন করা হয়েছে।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা