× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

অবন্তিকার ‘আত্মহনন’

জামিনে মুক্ত শিক্ষক দ্বীন ইসলাম ফিরতে চান ক্লাসে

বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক

প্রকাশ : ২৮ মে ২০২৪ ১৩:২৫ পিএম

আপডেট : ২৮ মে ২০২৪ ১৪:০২ পিএম

 অভিযুক্ত জবি শিক্ষক দ্বীন ইসলাম। ছবি : সংগৃহীত

অভিযুক্ত জবি শিক্ষক দ্বীন ইসলাম। ছবি : সংগৃহীত

চলতি বছরের ১৫ মার্চ  রাতে ফেসবুক পোস্টে শিক্ষক ও সহপাঠীকে দায়ী করে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) আইন বিভাগের শিক্ষার্থী ফাইরুজ সাদাফ অবন্তিকা আত্মহত্যা করেন। এ ঘটনায় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে আত্মহত্যার প্ররোচনার অভিযোগে সাবেক সহকারী প্রক্টর দ্বীন ইসলাম ও সহপাঠী রায়হান সিদ্দিকী আম্মানকে গ্রেপ্তার করেছিল পুলিশ। সেদিন রাতেই তাদের আসামি করে কুমিল্লার কোতোয়ালি থানায় বাদী হয়ে মামলা করেন অবন্তিকার মা।

শিক্ষক দ্বীন ইসলাম ও রায়হান সিদ্দিকী আম্মানকে গ্রেপ্তারের পর রিমান্ড শেষে আদালতের নির্দেশে কারাগারে পাঠানো হয়েছিল। এদিকে, গত ৮ মে শিক্ষক দ্বীন ইসলামকে উচ্চ আদালতের নির্দেশে কুমিল্লা কারাগার থেকে জামিনে মুক্তি দেওয়া হয়। বর্তমানে এ শিক্ষক ঢাকায় অবস্থান করছেন। শিক্ষক দ্বীন ইসলাম জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী অধ্যাপক হিসেবে কর্মরত ছিলেন। অবন্তিকার আত্মহত্যার ঘটনায় শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে শিক্ষকতা থেকে দ্বীন ইসলামকে সাময়িক অব্যাহতি দিয়েছিল প্রশাসন। 

বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সাময়িক অব্যাহতি পেলেও জামিনে মুক্তি পাওয়ায় খুব দ্রুতই ক্লাসরুমে ফিরতে চান শিক্ষক দ্বীন ইসলাম। এজন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে একটি চিঠি দিয়েছেন বলে প্রতিদিনের বাংলাদেশকে জানিয়েছেন তিনি। 

সাবেক সহকারী প্রক্টর দ্বীন ইসলাম বলেন, ‘আমি খুব তাড়াতাড়ি ক্লাসে ফিরতে চাই। জামিন পাওয়ার পর গত ১২ মে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে জানিয়েছি এবং ১৪ মে একটি আবেদনও করেছি যে আমি ক্লাসে ফিরে শিক্ষার্থীদের পড়াতে চাই।’

এদিকে দ্রুত ক্লাসে ফিরতে চাইলেও সেই আশা এখনই পূরণ হচ্ছে না শিক্ষক দ্বীন ইসলামের। বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গঠিত তদন্ত কমিটি কিংবা পুলিশি তদন্তের কোনো রিপোর্টই এখনও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের হাতে না আসায় এখনই ক্লাসে ফিরতে পারছেন না তিনি। বিষয়টি দ্বীন ইসলাম জানেন বলেও জানান তিনি।

দ্বীন ইসলাম বলেন, ‘আমি ক্লাসে যাতে ফিরতে পারি সেজন্য বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে আবেদন করেছি। বিশ্ববিদ্যালয় চাচ্ছে যেকোনো একটি তদন্ত কমিটির রিপোর্ট প্রকাশিত হোক। আর সে রিপোর্টে আমি নির্দোষ প্রমাণিত হলে ক্লাসে ফেরার অনুমতি পাব।’

এ বিষয়ে অবন্তিকার আত্মহত্যার ঘটনায় বিশ্ববিদ্যালয় থেকে গঠন করা তদন্ত কমিটির সদস্য ও আইন অনুষদের ডিন এবং চেয়ারম্যান অধ্যাপক ড. মাসুম বিল্লাহ বলেন, ‘শিক্ষক দ্বীন ইসলাম জামিন পাওয়া মানে এখনই ওনাকে নির্দোষ বলা যাচ্ছে না। জামিন পাওয়া একটি স্বাভাবিক আইনি প্রক্রিয়া। সে অনুযায়ী তিনি জামিন পেয়েছেন। তবে তিনি জামিন পাওয়ায় এখনই শিক্ষকতায় ফিরতে পারবেন কি না সেটা আসলে বিবেচনার বিষয়। কোনো একটি তদন্ত কমিটি রিপোর্ট দেওয়ার পর সে রিপোর্টের পরিপ্রেক্ষিতে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তখন হয়তো সিদ্ধান্ত নিতে পারবে তাকে পুনরায় শিক্ষকতায় ফিরিয়ে আনবে কি আনবে না। তাই শিক্ষক দ্বীন ইসলামকে শিক্ষকতায় ফিরতে আরও অপেক্ষা করতে হবে।’

ম্যানেজমেন্ট স্টাডিজ বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক মো. মিজানুর রহমান বলেন, ‘দ্বীন ইসলামকে পুনরায় শিক্ষকতায় ফিরিয়ে আনার সম্পূর্ণ সিদ্ধান্ত নেবে প্রশাসন। প্রশাসন তার সাময়িক অব্যাহতি উঠিয়ে নিলে সে (দ্বীন ইসলাম) আবার ক্লাস নিতে পারবে।’

এদিকে অবন্তিকার আত্মহত্যার ঘটনার আড়াই মাস হতে চললেও এখনও তদন্ত প্রতিবেদন জমা দিতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয়ের গঠিত তদন্ত কমিটি। শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের মুখে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য ৭ দিনের মধ্যে তদন্ত প্রতিবেদন প্রকাশের আশ্বাস দিলেও আড়াই মাসেও তা করতে পারেনি প্রশাসন। তদন্ত প্রতিবেদন পেতে আরও দেরি হতে পারে বলে জানিয়েছেন তদন্ত কমিটির সদস্যরা। এতে দ্বীন ইসলামের ক্লাসে ফেরার অপেক্ষা আরও দীর্ঘ হচ্ছে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের তদন্ত প্রতিবেদনের বিষয়ে কমিটির সদস্য অধ্যাপক ড. মাসুম বিল্লাহ বলেন, ‘আমরা প্রায় ৫০ জনের সঙ্গে কথা বলেছি, তাদের স্টেটমেন্ট নিয়েছি। সেসব পর্যালোচনা করে রিপোর্ট তৈরির কাজ করছি। আমরা আশাবাদী খুব শিগগিরই তদন্ত রিপোর্ট জমা দিতে পারব।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. আইনুল ইসলাম বলেন, ‘শুনেছি শিক্ষকতায় ফেরার জন্য সে (দ্বীন ইসলাম) আবেদন করবে। এখনও করেছে কি না তা জানিনা। আবেদন করলে আমরা আমাদের আইনজ্ঞদের সঙ্গে আলাপ করে সিদ্ধান্ত নেব।’

এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. সাদেকা হালিম বলেন, ‘তিনি যদি আবেদন করে থাকে, ওই আবেদনটি এখনও আমার হাতে আসেনি। আবেদনটি পাওয়ার পর আমি আগে পড়ি তারপর বিষয়টি দেখব। এর আগে কোনো মন্তব্য করতে চাই না।’

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা