× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

শত কোটি টাকা আত্মসাতের অভিযোগ

রাজস্ব কর্মকর্তা সুশান্ত পালের দুর্নীতির খোঁজে দুদক

প্রবা প্রতিবেদক

প্রকাশ : ০৬ মার্চ ২০২৪ ২১:০৫ পিএম

আপডেট : ০৭ মার্চ ২০২৪ ২২:০১ পিএম

কুষ্টিয়া কাস্টমসের ডেপুটি কমিশনার সুশান্ত পাল। ছবি : সংগৃহীত

কুষ্টিয়া কাস্টমসের ডেপুটি কমিশনার সুশান্ত পাল। ছবি : সংগৃহীত

কক্সবাজারে কাস্টমস এক্সাইজ অ্যান্ড ভ্যাট অফিসের সাবেক ডেপুটি কমিশনার সুশান্ত পালের বিরুদ্ধে অনুসন্ধান শুরু করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)।

সুশান্ত পাল ও তার ছয় সহযোগীর বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারা কক্সবাজারের নামিদামি হোটেল-রেস্টুরেন্টের রাজস্ব রেয়াতের মাধ্যমে শত কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছেন। একই সঙ্গে সরকারকে বছরে কয়েকশ কোটি টাকা রাজস্ব বঞ্চিত করেছেন। এসব বিষয়ে সুনির্দিষ্ট অভিযোগের ভিত্তিতে ২০২০ সালে একটি অভিযান পরিচালনা করে দুদক। ওই অভিযানে হোটেল মালিকদের রাজস্ব ফাঁকির প্রমাণ পায় সংস্থাটি। এর ভিত্তিতে দুদকের গোয়েন্দা বিভাগ অভিযোগ অনুসন্ধানে নামে।

দুদকের এক প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, কক্সবাজারে চার শতাধিক হোটেল-রেস্টুরেন্ট রয়েছে। অন্তত ৩০টি হোটেল-রেস্টুরেন্ট ও জাহাজের রাজস্ব ফাঁকির আলামত খুঁজে পেয়েছে দুর্নীতি দমন কমিশন। পরে এ বিষয়ে কমিশন থেকে একটি অনুসন্ধান দল গঠন করা হয়। দুদক প্রধান কার্যালয়ের তদন্তসংশ্লিষ্ট একটি সূত্র জানায়, ১৮ ফেব্রুয়ারি সুশান্ত পালকে অভিযোগের বিষয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে সংস্থাটি। প্রায় পৌনে এক ঘণ্টার জিজ্ঞাসাবাদে দুদক কর্মকর্তাদের প্রশ্নের কোনো সদুত্তর দিতে পারেননি বলেও জানায় অনুসন্ধানসংশ্লিষ্ট একজন ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা।

অভিযোগ বিষয়ে সুশান্ত পাল বলেন, ‘এমন কোনো অভিযোগের বিষয়ে আমার জানা নেই। এটা অনেক আগের ঘটনা।’ দুদকের জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলেও বিষয়টি তিনি ‘জানেন না’ বলে প্রতিদিনের বাংলাদেশকে জানান।

সুশান্ত এখন কুষ্টিয়া কাস্টমস এক্সাইজ অ্যান্ড ভ্যাট কমিশনারেট অফিসের ডেপুটি কমিশনার হিসেবে কর্মরত আছেন। ৩০তম বিসিএস পরীক্ষায় প্রথম স্থান অর্জন করেন সুশান্ত পাল। ফেসবুকে তার অনুসারী প্রায় দুই মিলিয়ন। চাকরিপ্রত্যাশীদের কাছে ব্যাপক জনপ্রিয়। ভালো ভালো কথা ও নিজ সাফল্যের জন্যই তার ভক্তের সংখ্যা বেড়েছে বলে মনে করেন সংশ্লিষ্টরা। তার সহকারী যাদের বিরুদ্ধে তদন্ত হচ্ছে তারা হলেন রাজস্ব-কর্মকর্তা সব্যসাচী শিকদার, সহকারী রাজস্ব কর্মকর্তা মো. জসিম উদ্দিন, আনিসুল করিম, সৈয়দ আবু রাসেল, মো. আলাউদ্দিন ও তৌফিক আহমেদ।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা