× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

র‌্যাব হেফাজতে নারীর মৃত্যু

র‌্যাব বলছে অসুস্থ হয়ে মৃত্যু, পরিবারের দাবি নির্যাতন

ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিবেদক

প্রকাশ : ১৮ মে ২০২৪ ২০:৪৪ পিএম

হাসপাতালে ভিড় জমায় নিহতের স্বজনরা। ছবি: সংগৃহীত

হাসপাতালে ভিড় জমায় নিহতের স্বজনরা। ছবি: সংগৃহীত

কিশোরগঞ্জের ভৈরব র‌্যাব-১৪, সিপিসি-২ ভৈরব ক্যাম্পে সুরাইয়া খাতুন নামের এক নারী আসামির মৃত্যুর ঘটনায় ধোঁয়াশা কাটছে না। র‌্যাব বলছে গরমে অসুস্থ হয়ে নারীর মৃত্যু হয়েছে, আর নিহতের পরিবার বলছে র‌্যাবের নির্যাতনে মৃত্যু হয়েছে। 

এদিকে এ ঘটনায় ভৈরব থানায় ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করেছে বলে জানা গেছে। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন ভৈরব থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. সফিকুল ইসলাম। তবে মামলার বিষয় অস্বীকার করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বুলবুল আহমেদ। 

মামলাতেও রয়েছে রহস্য। পুলিশ বলছে মামলা হয়েছে, আর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স বলছে মামলা করেনি। সুরাইয়া খাতুন অসুস্থ্য হলে র‌্যাবের সদস্যরা তাকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। যদিও সেখানে ছিল না কোনো নারী সদস্য। কর্তব্যরত চিকিৎসক সুরাইয়া খাতুনকে মৃত ঘোষণা করলে সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা ৭টা পর্যন্ত মরদেহ হাসপাতালে পড়ে থাকে। ঘটনার পর থেকেই বিভিন্ন গণমাধ্যমকর্মীরা হাসাপতালে গেলে র‌্যাবের পক্ষ থেকে কোনো তথ্য না দেওয়ায় রহস্যের সৃষ্টি হয়। এমনকি পরবর্তিতেও যোগাযোগ করতে চাইলে কেউই এ বিষয়ে কথা বলতে রাজি হয়নি। তবে হাসপাতাল থেকে বিভিন্ন সুত্রে জানা যায়, মৃত সুরাইয়া খাতুনের শরীরে আঘাতের চিহৃ রয়েছে। 

জানা গেছে, গত শুক্রবার সকাল ৭টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনার পর সুরাইয়া নামের এক নারীকে মৃত অবস্থায় পাওয়া যায়। পরে ভৈরব থানা-পুলিশকে খবর দেয় স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্তৃপক্ষ। র‌্যাব হেফাজতে মৃত্যু হওয়ায় র‌্যাবের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ, পুলিশ প্রশাসন, স্বাস্থ বিভাগের দীর্ঘ ১২ ঘণ্টা আলোচনার পর সন্ধ্যা ৭টায় সাংবাদিকদের ব্রিফিং করেন কিশোরগঞ্জ জেলার নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ইসরাত জাহান।

তিনি বলেন, সন্ধ্যা ৭টার দিকে জেলা প্রশাসকের নির্দেশে র‍্যাব হেফাজতে থাকা নারী আসামি সুরাইয়া খাতুনের মরদেহের সুরতাল রির্পোট তৈরি করে ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ মর্গে পাঠানো হয়েছে। ময়নাতদন্ত রির্পোট আসার পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে।

মৃত সুরাইয়া খাতুন ময়মনসিংহের নান্দাইল উপজেলার বরুণাকান্দা চণ্ডীপাশা গ্রামের আজিজুল হকের স্ত্রী। অন্তঃসত্ত্বা পুত্রবধু হত্যা মামলার আসামি তিনি। এ ঘটনায় তাকে নান্দাইল থানার সামনে থেকে গ্রেপ্তার করে র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পের সদস্যরা। গ্রেপ্তারের বিষয়টি জানিয়েছেন তার স্বামী পুত্রবধু হত্যা মামলার আরেক আসামি আজিজুল ইসলাম। 

আজিজুল ইসলাম মুঠোফোনে বলেন, ‘আমার পুত্রবধু রেখা আক্তার ফাঁসিতে আত্মহত্যা করেছে। তারপরও তার পরিবার মামলা করেছে। আমরা আইনিভাবে মোকাবিলা করব। শুক্রবার রাতে নান্দাইল থানায় পুলিশ আমাদের ডেকে এনে র‍্যাবের হাতে সুস্থ অবস্থায় আমার স্ত্রীকে তুলে দিল। আমার ছেলে তাজুল ইসলাম লিমনকে ঢাকা থেকে আটক করা হয়। খবর পেলাম রাতেই মারা গেল আমার স্ত্রী। র‍্যাব নির্যাতন করে আমার স্ত্রীকে হত্যা করেছে। আমি এ বিষয়ে আদালতে মামলা করব। আমি বিচার চাই।’

এ বিষয়ে র‌্যাব-১৪ ভৈরব ক্যাম্পের কমান্ডার লেফটেন্যান্ট ফাহিম ফয়সাল বলেন, রাতে গরমে অসুস্থ হয়ে পড়েন সুরাইয়া খাতুন। পরে অসুস্থ অবস্থায় তাকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়ার পথে তার মৃত্যু হয়। 

র‌্যাব অফিস সুত্রে জানা গেছে, গত ১৩ মে ময়মনসিংহের নান্দাইল থানায় অন্তঃসত্ত্বা গৃহবধূ রেখা বেগমকে হত্যা মামলা দায়ের করেন মা রামিসা খাতুন। এরপর থেকে বিশেষ তদন্তে কাজ করে র‌্যাব। নিহতের স্বামী ও শাশুড়ি ঘটনার পর গা-ডাকা দিলে র‌্যাব তাদের দুজনকে গ্রেপ্তার করে। 

ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা বুলবুল আহমেদ বলেন, শুক্রবার সকালে সুরাইয়া খাতুনকে হাসপাতালে আনেন র‌্যাবের সদস্যরা। কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত অবস্থায় পান। পরে হাসপাতাল থেকে পুলিশ প্রশাসনকে জানালে ভৈরব থানা-পুলিশ ও কিশোরগঞ্জ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট এসে মরদেহের সুরাতহাল রিপোর্ট তৈরি করে। থানায় অপমৃত্যুর মামলার বিষয়ে আমি কিছুই জানি না। 

এ বিষয়ে ভৈরব থানার ওসি মো. সফিকুল ইসলাম বলেন, মরদেহ ময়নাতদন্তের পর মৃতের স্বজনদের কাছে দেওয়া হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা হয়েছে। ভৈরব উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স কর্মকর্তা মামলার বাদী। তদন্ত সাপেক্ষে পুলিশের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।  

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা