× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

শরীয়তপুরে দ্বিধাবিভক্ত আওয়ামী লীগ

হেসেখেলে নৌকা জিতবে দুই আসনে, লড়াই হবে একটিতে

এমবি কাজী নাছির, শরীয়তপুর

প্রকাশ : ০৬ জানুয়ারি ২০২৪ ২২:৩০ পিএম

আপডেট : ০৬ জানুয়ারি ২০২৪ ২২:৪৪ পিএম

হেসেখেলে নৌকা জিতবে দুই আসনে, লড়াই হবে একটিতে

স্বাধীনতার পর প্রায় সব নির্বাচনেই শরীয়তপুর-২ আসনে নৌকা জিতেছে। কিন্তু এবার বাদ সেধেছে আওয়ামী লীগেরই ঈগল। এ আসনে এবার নির্বাচনী আমেজ সৃষ্টির শুরুতেই মনোনয়নপত্র দাখিল হতে না হতেই বোমা হামলা ও মারামারি ঘটেছে নৌকা ও ঈগলের সমর্থকদের মধ্যে। ফলে শরীয়তপুর-২ আসনের নেতাকর্মীদের দ্বিধাবিভক্তিও স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। উদ্বেগ-উৎকণ্ঠা দেখা দিয়েছে ভোটারদের মধ্যেও। 

শরীয়তপর-২ (নড়িয়া-সখিপুর) আসন

শরীয়তপুরের উত্তর ও উত্তর-পূর্বাঞ্চলে অবস্থিত ২ নম্বর আসনটি নড়িয়া উপজেলা ও ভেদরগঞ্জ উপজেলার সখিপুর থানা নিয়ে গঠিত। এ আসনে রয়েছে নড়িয়া উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন, ১টি পৌরসভা এবং সখিপুর থানার ৯টি ইউনিয়ন। আসনটিতে মোট ভোটারসংখ্যা ৩ লাখ ৮২ হাজার ৩৬৬ জন। আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক একেএম এনামুল হক শামীম এ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য। তিনি পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উপমন্ত্রীর দায়িত্বও পালন করে আসছেন। এবারও তিনি দল থেকে নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনের জন্য মনোনয়ন পেয়েছেন। 

একেএম এনামুল হক শামীমের আগে এ আসনে একাধিকবার এমপি ছিলেন প্রয়াত কর্নেল শওকত আলী। ডেপুটি স্পিকারের দায়িত্বও পালন করেছেন তিনি। এবারের নির্বাচনে এ আসন থেকে ঈগল প্রতীক নিয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে লড়াই করছেন তারই ছেলে ডা. খালেদ শওকত আলী। আসনটিতে ১০ জন প্রার্থী থাকলেও পর্যবেক্ষকদের ধারণা, মূল লড়াই হবে নৌকা প্রতীকের একেএম এনামুল হক শামীম ও ঈগল প্রতীকের ডা. খালেদ শওকত আলীর মধ্যে। 

এ ছাড়া এ আসনে অন্য প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেনÑ গণফন্টের কাজী জাকির হোসেন (মাছ), বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মাহমুদুল হাছান (বটগাছ), বিকল্পধারা বাংলাদেশের মো. আমিনুল ইসলাম (কুলা), জাতীয় পার্টির মো. ওয়াহিদুর রহমান (লাঙ্গল), ন্যাশনাল পিপলস পার্টির মো. আবুল হাসান (আম), জাসদের মো. ফিরোজ মিয়া (মশাল), মুক্তিজোটের মো. মনির হোসেন (ছড়ি) এবং বাংলাদেশ কংগ্রেসের সৌমিত্র দত্ত (ডাব)।

এখানকার ভোটাভুটি সম্পর্কে নড়িয়া শহরের ব্যবসায়ী রমজান ঢালী, মনির হোসেন ও রনি মিয়া বলেন, ‘এই আসনে ভোটের আমেজ পুরোপুরি শুরু হয়ে গেছে। অন্য আসনগুলোতে একতরফা নির্বাচন হলেও এখানে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে। লড়াই হবে উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীমের নৌকা ও ডা. খালেদ শওকত আলীর ঈগল প্রতীকের মধ্যে। 

স্বতন্ত্র প্রার্থী ডা. খালেদ শওকত আলী বলেন, ‘আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের ভাষায়, এবারের নির্বাচনের সৌন্দর্য হলো স্বতন্ত্র প্রার্থী। আমরা সেই সৌন্দর্য রক্ষা করছি। নির্বাচন যাতে প্রতিযোগিতামূলক ও অংশগ্রহণমূলক হয়, সেজন্য আমরা অংশ নিচ্ছি। সাধারণ মানুষের ব্যাপক সাড়াও পাচ্ছি। জয়ের ব্যাপারে আমি শতভাগ আশাবাদী।’ 

এ ব্যাপারে উপমন্ত্রী একেএম এনামুল হক শামীম বলেন, ‘নড়িয়ায় নৌকা কখনও পরাজিত হয়নি, পরাজিত হবে না। এ এলাকার প্রধান সমস্যা ছিল নদীভাঙন। আমি গতবার নির্বাচিত হওয়ার পর নদীভাঙন রোধ করেছি। রাস্তাঘাটের ব্যাপক উন্নয়ন করেছি। পাঁচ বছর এলাকায় কোনো মারামারি কাটাকাটি নেই। মানুষের সুবিধার্থে ডিপ টিউবয়েল, ঢেউটিনসহ নগদ অর্থ দিয়েছি। বিদ্যুতের সংকট কাটিয়ে উঠতে ১০ মেগাওয়াট থেকে ২০ মেগাওয়াট বিদ্যুৎ দিয়েছি।’ 

শরীয়তপুর-১ (পালং-জাজিরা) আসন

শরীয়তপুর-১ (পালং-জাজিরা) আসনে ভোটারদের সুপরিচিত কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নেই। তবে এ আসনে প্রতীক বরাদ্দের পর থেকে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী ইকবাল হোসেন অপু জোরেশোরেই গণসংযোগ শুরু করেছেন। এখানে আওয়ামী লীগ বাদে অন্য সব দলের প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেনÑ তৃণমূল বিএনপির আবুল বাশার মাদবর (সোনালী আঁশ), স্বতন্ত্র প্রার্থী মোহাম্মদ গোলাম মোস্তফা (ঈগল), বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলনের মো. আব্দুস সামাদ (বটগাছ) ও জাতীয় পার্টির মো. মাসুদুর রহমান মাসুদ (লাঙ্গল)।

শরীয়তপুর সদর উপজেলার ১১টি ইউনিয়ন একটি পৌরসভা এবং জাজিরা উপজেলার ১২টি ইউনিয়ন ও ১টি পৌরসভা রয়েছে আসনটিতে। এ আসনে তিন লাখ ৬৩ হাজার ৩৪৯ জন ভোটার রয়েছেন।

শরীয়তপর-৩ (ভেদরগঞ্জ আংশিক, ডামুড্যা ও গোসাইরহাট) আসন

শরীয়তপুর-৩ আসনে আওয়ামী লীগ সরকারের উন্নয়ন কার্যক্রম তুলে ধরে ভোটারদের ভোটকেন্দ্রে উপস্থিত হয়ে ভোট দেওয়ার আহ্বান জানাচ্ছেন বর্তমান এমপি ও চলতি নির্বাচনের প্রার্থী নাহিম রাজ্জাক। তবে শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী না থাকায় ভোটারদের মধ্যে নেই নির্বাচনী আমেজ। এর আগে এ আসনে এমপি ছিলেন নাহিমের বাবা আওয়ামী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী প্রয়াত আব্দুর রাজ্জাক। বাবার মৃত্যুর পর নাহিম রাজ্জাক একটি উপনির্বাচনসহ ২০১৪ ও ২০১৮ সালে অনুষ্ঠিত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে নৌকা প্রতীক নিয়ে আসনটি থেকে নির্বাচিত হয়েছিলেন। এবারও তিনি নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচন করছেন। 

এ আসনে অন্য প্রার্থীরা হলেনÑ ইসলামী ঐক্যজোটের কা. হা. মা. মো. মাহদী হাসান (মিনার), জাতীয় পার্টির মো. আব্দুল হান্নান (লাঙ্গল) এবং বাংলাদেশ তরীকত ফেডারেশনের মো. সিরাজ চৌকিদার (ফুলের মালা)। 

শরীয়তপুরের সর্বদক্ষিণে অবস্থিত আসনটি ভেদরগঞ্জ উপজেলার একাংশ, ডামুড্যা ও গোসাইরহাট উপজেলা নিয়ে গঠিত। এ আসনে রয়েছে ভেদরগঞ্জ উপজেলার ৪টি ইউনিয়ন, ১টি পৌরসভা, ডামুড্যা উপজেলার ৭টি ইউনিয়ন, ১টি পৌরসভা এবং গোসাইরহাট উপজেলার ৮টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা। এ আসনে ৩ লাখ ৩৩ হাজার ৬৯৩ জন ভোটার রয়েছেন।

শরীয়তপুর সদর ও ডামুড্যা এলাকার ভোটার কালাম শেখ, বিল্লাল সৈয়াল, কাশেম মীর, জনি সিকদার বলেন, জনগণের পরিচিত ও শক্তিশালী প্রতিদ্বন্দ্বী কোনো প্রার্থী না থাকায় আমাদের এলাকায় কোনো নির্বাচনী আমেজ নেই।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা