× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

বাগেরহাটের চার আসন

সহজ জয়ের সম্ভাবনা আ.লীগ প্রার্থীদের

এসকে সোহেল, বাগেরহাট

প্রকাশ : ০৬ জানুয়ারি ২০২৪ ২১:২৮ পিএম

আপডেট : ০৬ জানুয়ারি ২০২৪ ২২:২৫ পিএম

সহজ জয়ের সম্ভাবনা আ.লীগ প্রার্থীদের

দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ আজ রবিবার। এই নির্বাচনে বাগেরহাট জেলার চারটি আসনে দলীয় ও তিনজন স্বতন্ত্র মিলে মোট ২৬ প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। ভোটের মাঠে চারটি আসনেই আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা এগিয়ে রয়েছেন। বিএনপি-জামায়াত নির্বাচনে অংশগ্রহণ না করায় এসব আসনে আওয়ামী লীগের বিপরীতে শক্ত কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী নেই বললেই চলে। দেশের বেশিরভাগ জায়গায় নৌকার প্রার্থীদের বিপরীতে আওয়ামী লীগের হেভিওয়েট স্বতন্ত্র প্রার্থীদের লড়াই হলেও বাগেরহাটের চার আসনের মধ্যে মাত্র দুজন স্বতন্ত্র প্রার্থী ছাড়া বাকি দলীয় বা স্বতন্ত্র প্রার্থীরা ভোটারদের অপরিচিত।

বাগেরহাট-১

বাগেরহাট-১ (চিতলমারী, ফকিরহাট ও মোল্লাহাট) আসনে আওয়ামী লীগের শেখ হেলাল উদ্দিন, জাতীয় পার্টির মো. কামরুজ্জামান, তৃণমূল বিএনপির মাহফুজুর রহমান, বাংলাদেশ ন্যাশনাল মুভমেন্টের (বিএনএম) মো. মঞ্জুর হোসেন শিকদার, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির বাসুদেব, বাংলাদেশ কংগ্রেসের আতাউর রহমান আতিক প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তবে এই আসনে শেখ হেলাল উদ্দিন ছাড়া অন্য কোনো প্রার্থী ভোটের মাঠে তেমন প্রভাব বিস্তার করতে পারেননি। প্রচার-প্রচারণাও ছিল নামকাওয়াস্তে। সাধারণ মানুষের ধারণা, এই আসনে শেখ হেলাল উদ্দিন বিপুল ভোটে নির্বাচিত হবেন। ভোটের হিসাবে নৌকার কাছাকাছিও যাওয়ার সম্ভাবনা নেই কোনো প্রার্থীর।

বাগেরহাট-২

বাগেরহাট-২ (সদর ও কচুয়া) আসনে আওয়ামী লীগের শেখ তন্ময়, জাতীয় পার্টির হাজরা সহিদুল ইসলাম, জাকের পার্টির খান আরিফুর রহমান, বিএনএমের সোলায়মান শিকদার, তৃণমূল বিএনপির মরিয়ম সুলতানা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী এস এম আজমল হোসেন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করেছেন। শেখ তন্ময় ছাড়া অন্য পাঁচ প্রার্থীকে অনেক ভোটার চেনেনও না। শুরু থেকে তাদের তেমন প্রচার-প্রচারণাও ছিল না। যতটুকু না করলে নয়, তার মধ্যেই ছিলেন তারা। নৌকার প্রার্থী শেখ পরিবারের সদস্য হওয়ায় ভোটের মাঠে অতিরিক্ত গুরুত্ব পাচ্ছেন। বিপুল ভোটে তিনি নির্বাচিত হবেন বলে ধারণা স্থানীয়দের।

বাগেরহাট-৩

বাগেরহাট-৩ (মোংলা-রামপাল) আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থী উপমন্ত্রী হাবিবুন নাহার, জাতীয় পার্টির মো. মনিরুজ্জামান মনি, জাসদের শেখ নুরুজ্জামান মাসুম, বিএনএমের সুব্রত মণ্ডল, বাংলাদেশ কংগ্রেসের মফিজুল ইসলাম গাজী, তৃণমূল বিএনপির মি. ম্যানুয়েল সরকার, স্বতন্ত্র প্রার্থী হিসেবে আছেন জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা ইদ্রিস আলী ইজারাদার ভোটের মাঠে রয়েছেন। নৌকা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী ঈগল প্রতীকের ইদ্রিস আলী ইজারাদার ছাড়া অন্য পাঁচজনকে বেশিরভাগ ভোটার চেনেনই না। এই আসনে নিজ দলের স্বতন্ত্র প্রার্থী ইদ্রিস আলী ইজারাদারের সঙ্গে নৌকার প্রার্থী হাবিবুন নাহারের কিছুটা লড়াই হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। হাবিবুন নাহার তিনবারের সংসদ সদস্য এবং খুলনার সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেকের স্ত্রী হওয়ায় সাধারণ মানুষের কাছে তার আলাদা গুরুত্ব রয়েছে। শেষ পর্যন্ত এই আসনে নৌকারই জয়ের সম্ভাবনাই বেশি।

বাগেরহাট-৪

বাগেরহাট-৪ (মোরেলগঞ্জ-শরণখোলা) আসনে আওয়ামী লীগের এইচএম বদিউজ্জামান সোহাগ, জাতীয় পার্টির সাজন কুমার মিস্ত্রি, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) মুহাম্মদ লোকমান, বাংলাদেশ সাংস্কৃতিক মুক্তিজোটের মুহাম্মদ বদরুজ্জামান, বিএনএমের রেজাউল ইসলাম রাজু, তৃণমূল বিএনপির লুৎফর নাহার রিক্তা ও স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. জামিল হোসাইন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এই আসনে স্বতন্ত্র প্রার্থী আওয়ামী লীগ নেতা এম আর জামিল হোসেন ভোটের মাঠে কিছুটা প্রভাব বিস্তার করলেও সহজে নির্বাচনী বৈতরণী পার হওয়ার সম্ভাবনা নৌকার প্রার্থী কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি এইচ এম বদিউজ্জামান সোহাগের। এ ছাড়া অন্য প্রার্থীরা কাগজ-কলমে থাকলেও প্রচার-প্রচারণা ও ভোটের মাঠে তাদের অবস্থান নেই বললেই চলে।

বাগেরহাট জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা কামরুজ্জামান টুকু বলেন, ২০০৮ সালেও বাগেরহাটের চারটি আসনে নৌকার প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন। সরকার পদ্মা সেতু, স্কুল-কলেজ, রাস্তাঘাট নির্মাণসহ ব্যাপক উন্নয়ন করেছে। যার ফলে বিগত ১৫ বছরে আওয়ামী লীগের পক্ষে ব্যাপক জনমতের সৃষ্টি হয়েছে। বিএনপি এলেও, ভোটের মাঠে তারা টিকতে পারত না। মানুষ উন্নয়নের পক্ষেই ভোট দেবেন। এবারও জেলার চারটি আসনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা নিরঙ্কুশ বিজয় অর্জন করবেন।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা