× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

পাহাড়ে শান্তি প্রতিষ্ঠা

কেএনএফ ও শান্তি প্রতিষ্ঠা কমিটির সমঝোতা

বান্দরবান প্রতিবদক

প্রকাশ : ০৫ নভেম্বর ২০২৩ ২১:৩৬ পিএম

কেএনএফ ও শান্তি প্রতিষ্ঠা কমিটির সমঝোতা

দীর্ঘ ঘাত-প্রতিঘাতের পর বান্দরবানে বহুল আলোচিত কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট (কেএনএফ) ও শান্তি প্রতিষ্ঠা কমিটির প্রাথমিক সমঝোতা স্মারক সম্পন্ন হয়েছে। রবিবার (৫ নভেম্বর) সকালে রুমার মুনলাইপাড়ায় অনুষ্ঠিত প্রথম সশরীরে বৈঠকে এ সমঝোতা স্মারক সম্পন্ন হয়।

শান্তি কমিটির মুখপাত্র কাঞ্চন জয় তঞ্চঙ্গা জানান, বৈঠকে শান্তি প্রতিষ্ঠা কমিটির চেয়ারম্যান ক্য শৈ হ্লার নেতৃত্বে আট সদস্য এবং কেএনএফের প্রতিষ্ঠাতা নাথান বমের প্রধান উপদেষ্টা লাল এন লিয়ান বমের নেতৃত্বে পাঁচ সদস্য অংশ নেন। এ ছাড়া অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মো. সাইফুল ইসলাম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. শাহ্ আলমসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। 

কাঞ্চন জয় তঞ্চঙ্গা আরও জানান, বৈঠক ঘিরে মুনলাইপাড়ায় কড়া নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়। পুলিশ-বিজিবিসহ মোতায়েন ছিল আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর বিপুল সদস্য। দুই পক্ষের মধ্যে এর আগে কয়েকবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠক হলেও সামনাসামনি এটিই প্রথম বৈঠক। বৈঠকে কেএনএফের পক্ষ থেকে পূর্বে উত্থাপিত ছয় দফা দাবি শান্তি কমিটির মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর পৌঁছানোর পাশাপাশি বম সম্প্রদায়ের লোকজনকে নিত্যপ্রয়োজনীয় বাজার-সদায় ক্রয়ে বিধিনিষেধ তুলে নেওয়া, তরুণ বম সদস্যদের হয়রানি না করা, কেএনএফ সদস্যের নামে আটক করা ৬১ জনের নিস্বার্থ মুক্তির দাবি এবং আগামী ডিসেম্বরের মধ্যে কোনো সংঘাতে না যাওয়ার বিষয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত হয়।

বান্দরবান পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও শান্তি প্রতিষ্ঠা কমিটির আহ্বায়ক ক্য শৈ হ্লা জানান, কেএনএফের সঙ্গে সশরীরে প্রথম বৈঠক খুবই আন্তরিক ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্ন হয়েছে। আগামী ডিসেম্বর মাসে আরও একটি বৈঠক হবে। এই বৈঠকের মাধ্যমে চলমান সমস্যা নিরসন হবে বলে প্রত্যাশা করেন তিনি।

কুকি-চিনের ছয়দফা দাবিগুলো হলো-

১. প্রান্তিক অঞ্চলের অনগ্রসর ও সুবিধাবঞ্চিত কুকি-চিন জনগোষ্ঠীর বিলীয়মান সাংস্কৃতিক বৈশিষ্ট্য রক্ষাসহ শান্তি প্রতিষ্ঠা ও সার্বিক উন্নতি সাধনের লক্ষ্যে ‘কুকি-চিন টেরিটোরিয়াল কাউন্সিল (কেটিসি)’ নামে স্বায়ত্তশাসিত পরিষদ গঠন করা।

২. ভূমি ও পর্যটন বিষয় সংক্রান্ত সব কর্মকাণ্ডের সর্বময় ক্ষমতা কেটিসির ওপর সম্পূর্ণভাবে অর্পণ করতে হবে।

৩. এই অঞ্চলে পুলিশ নিয়োগসহ সব ক্ষমতা কেটিসির ওপর অর্পণ করতে হবে।

৪. কেএনএফের সশস্ত্র আন্দোলনকালীন কেএনএফের সশস্ত্র সদস্যসহ অন্যান্য নিরীহ ব্যক্তির মধ্যে যাদের বিরুদ্ধে মামলা, গ্রেপ্তারি পরোয়ানা, হুলিয়া জারি অথবা অনুপস্থিতিকালীন বিচারে শাস্তি প্রদান করা হয়েছে, অস্ত্র সমর্পণ ও স্বাভাবিক জীবনে প্রত্যাবর্তনের পর যত দ্রুত সম্ভব তাদের বিরুদ্ধে সব মামলা, গ্রেপ্তারি পরোয়ানা, হুলিয়া প্রত্যাহার করা এবং অনুপস্থিতকালীন সময়ে দেওয়া সাজা মওকুফ করা। কেএনএফের কোনো সশস্ত্র সদস্য বা কেএনএফের নামে নিরীহ ব্যক্তিদের জেলে আটক থাকলে তাদেরও বিনা শর্তে মুক্তি দিতে হবে।

৫. ১৯৭১ সালের পর থেকে স্বাধীনতা যুদ্ধের কারণে এবং ২০২২ ও ২০২৩ সালে কুকি-চিন অঞ্চলে ব্যাপক সেনা অভিযানের ফলে পার্শ্ববর্তী অঞ্চলসমূহে তথা ভারতের মিজোরাম এবং মিয়ানমারের পালেতুয়া এলাকায় পালিয়ে গিয়ে বিভিন্ন সময়ে আশ্রয় নেওয়া কুকি-চিন শরণার্থীদের সসম্মানে দেশে ফিরিয়ে এনে পুনর্বাসনের ব্যবস্থা নেওয়া।

৬. কুকি-চিন আর্মড ব্যাটালিয়ন (কেএবি) নামে সশস্ত্র পদাতিক ব্যাটালিয়ন গঠন করতে হবে। দেশের ভূখণ্ডের স্পর্শকাতর সীমান্ত অঞ্চলের নিরীহ জনগণ তথা পাহাড়ি-বাঙালির জানমাল রক্ষা, সন্ত্রাস দমনসহ নিরপেক্ষভাবে শান্তি প্রতিষ্ঠার উদ্দেশ্যে কুকি-চিন জনগোষ্ঠীদের নিয়ে পৃথকভাবে ‘কুকি-চিন আর্মড ব্যাটালিয়ন’ বা কেএবি গঠন করা। কেএবি প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর চট্টগ্রামের এরিয়া কমান্ডারের (জিওসি) তত্ত্বাবধানে থাকবে।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: protidinerbangladesh.pb@gmail.com

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: pbad2022@gmail.com

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: pbonlinead@gmail.com

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: pbcirculation@gmail.com

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা