× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

সন্তানের পা কেটে ফেলায় বিচার দাবিতে বাবার সংবাদ সম্মেলন

বেড়া, সাঁথিয়া (পাবনা) প্রতিবেদক

প্রকাশ : ৩০ মে ২০২৪ ১৭:২১ পিএম

আপডেট : ৩০ মে ২০২৪ ১৭:৫১ পিএম

বৃহস্পতিবার বেড়া প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আহত মাসুদ রানার বাবা আব্দুল মজিদ। প্রবা ফটো

বৃহস্পতিবার বেড়া প্রেস ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন আহত মাসুদ রানার বাবা আব্দুল মজিদ। প্রবা ফটো

পাবনার বেড়ায় মাসুদ রানাকে হত্যার উদ্দেশ্যে পা কেটে ফেলার ঘটনায় জড়িত আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তার ও দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছে তার বাবা আব্দুল মজিদ।

বৃহস্পতিবার (৩০ মে) বেড়া প্রেস ক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন করেছেন আহত মাসুদের পরিবারের সদস্যরা। এ সময় এলাকার নারী-পুরুষ প্রেস ক্লাব ও উপজেলা পরিষদের সামনে মানববন্ধন করেন।

সংবাদ সম্মেলনে আব্দুল মজিদ মোল্লা লিখিত বক্তব্য বলেন, গত ২৫ মে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে আমার ছেলে মাসুদ রানা বাড়ির পাশে দায়েনের দোকানে চাউল কিনতে যায়। এ সময় অতর্কিতভাবে পেছন থেকে দেশীয় অস্ত্র  দিয়ে আমার ছেলে মাসুদকে পরিকল্পিতভাবে হত্যার উদ্দ্যেশে সন্ত্রাসী সাউদ প্রামাণিক, জাকারিয়া, সিরাজুল, সাদ্দাম, সাকিব, সাদিক, মনজু, মিরাজুল, শাহিনুর, হোসেন আলী, আলামিন, ফজর, নূর আমিন, বেলাল, ফজর, বাইতুল্লাহ, শিহাব এলোপাথাড়ি কুপিয়ে পা কেটে শরীর থেকে বিচ্ছিন্ন করে ফেলে। এ সময় হাত ভেঙে দেয় এবং হাতের একটি আঙুল কেটে ফেলে। সন্ত্রাসীরা এ সময় বাড়িঘর কুপিয়ে ভেঙে ফেলে টাকা-পয়সা ও স্বর্ণালঙ্কারসহ অন্যান্য জিনিসপত্র লুট এবং বাড়ির নারী ও শিশুদের ওপরও আক্রমণ চালায়। এলাকাবাসীর সহযোগিতায় মাসুদ রানাকে বেড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হলে অবস্থার অবনতি হলে পাবনা সদর হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখান থেকে পরবর্তীতে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। এরপর ঢাকা শহীদ সোহরাওয়ার্দী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। অবস্থার উন্নতি না হলে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে নেওয়া হলেও সেখানে পা জোড়া লাগাতে পারেনি চিকিৎসক। বর্তমানে তার অবস্থা খুবই আশঙ্কাজনক। বর্তমানে সে জীবনমৃত্যুর সন্ধিক্ষণে রয়েছে। 

তিনি আরও বলেন, আমরা এ ব্যাপারে বেড়া উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে মাসুদ রানার কাটা পা নিয়ে বিচার চাইতে গিয়েছিলাম। তিনি উপস্থিত না থাকায় দায়িত্বরত কর্মকর্তারা কাটা পায়ের ছবি তুলে রাখেন এবং উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে বিষয়টি বলবেন বলে আস্বস্ত করেন। কিন্ত আজ পর্যন্ত আমরা কোনো বিচার পাইনি। এ ছাড়াও বেড়া থানার পুলিশ কর্মকর্তারা আমাদের বাড়িতে এসেছিলেন। তরে এখনও কোনো আসামিকে গ্রেপ্তার করতে পারেনি পুলিশ। আমরা সানিলা গ্রামবাসী প্রশাসনের কাছে জোরদাবি জানাচ্ছি আসামিদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে আইনের আওতায় এনে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেওয়া হোক। যাতে পরবর্তীতে কেউ এ ধরনের কাজ করতে সাহস না পায়।

এ বিষয়ে অভিযুক্তদের সঙ্গে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তারা সবাই পলাতক থাকায় বক্তব্য নেওয়া সম্ভব হয়নি।

বেড়া মডেল থানার ভারপাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাশিদুল ইসলাম প্রতিদিনের বাংলাদেশকে বলেন, এ ঘটনায় মামলা হয়েছে। উপজেলা নির্বাচনের জন্য পুলিশ কর্মকর্তারা অনেকেই থানার বাইরে ছিলেন। এখন মোটামুটি সবাই চলে এসছে, খুব দ্রুত সময়ের মধ্যে আসামিদের গ্রেপ্তার করা হবে। 

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা