× ই-পেপার প্রচ্ছদ বাংলাদেশ রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত চাকরি ফিচার চট্টগ্রাম ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

সিলেটে বন্যা, বিপদসীমা ছাড়াল নদ-নদীর পানি

সিলেট অফিস

প্রকাশ : ৩০ মে ২০২৪ ১০:০২ এএম

আপডেট : ৩০ মে ২০২৪ ১১:১২ এএম

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও টানা দু’দিনের বৃষ্টিতে সিলেটের চার উপজেলায় বন্যা দেখা দিয়েছে। প্রবা ফটো

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও টানা দু’দিনের বৃষ্টিতে সিলেটের চার উপজেলায় বন্যা দেখা দিয়েছে। প্রবা ফটো

উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢল ও টানা দু’দিনের বৃষ্টিতে সিলেটের চার উপজেলায় বন্যা দেখা দিয়েছে। জেলার সবক’টি নদ-নদীর পানি বিপদসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এতে উদ্বেগ ও আতঙ্কের মধ্যে রয়েছেন নদী-তীরবর্তী লোকজন।

সিলেটের গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর, কোম্পানীগঞ্জ ও কানাইঘাট উপজেলার বেশির ভাগ এলাকা পানিতে ডুবে গেছে। বিভিন্ন সড়ক ডুবে যাওয়ায় যান চলাচল ব্যাহত হচ্ছে। ইতোমধ্যেই প্রশাসনের পক্ষ থেকে খোলা হয়েছে আশ্রয় কেন্দ্র। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কানাইঘাট উপজেলার ১নং লক্ষ্মীপ্রসাদ পূর্ব ইউপি, ২নং লক্ষ্মীপ্রসাদ পশ্চিম ইউপি, ৪ নং সাতবাঁক ইউপি, কানাইঘাট সদর ইউপি, কানাইঘাট পৌরসভা, গোয়াইনঘাট উপজেলার রুস্তুমপুর ইউনিয়ন, লেঙ্গুড়া, ডৌবাড়ি, নন্দীরগাঁও, পূর্ব ও পশ্চিম আলীরগাঁও, পশ্চিম জাফলং, মধ্য জাফলং, জৈন্তাপুর উপজেলার নিজপাট লামাপড়া, বন্দরহাটি, ময়নাহাটি, জাঙ্গালহাটি, বড়খেলা, মেঘলী, তিলকৈপাড়া, ফুলবাড়ী, নয়াবাড়ী, হর্নি, বাইরাখেল, গোয়াবাড়ী, ডিবির হাওর, ঘিলাতৈল, মুক্তাপুর, বিরাইমারা হাওর, খারুবিল, লমানীগ্রাম, কাটাখাল, বাউরভাগ ও বাওন হাওরসহ কোম্পানিগঞ্জের নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। এ ছাড়া সালুটিকর-গোয়াইনঘাট সড়ক তলিয়ে যাওয়ার কারণে যান চলাচল বন্ধ হয়ে উপজেলা সদরের সঙ্গে বিভিন্ন এলাকা যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন রয়েছে।

গোয়াইনঘাটের ১৩টি ইউনিয়নে মোট ৫৬টি আশ্রয়কেন্দ্র খোলা রয়েছে। অতি ঝুঁকিপূর্ণ ও বন্যা এলাকায় আশ্রয়কেন্দ্রে জনগণকে দ্রুত অবস্থান নিতে মাইকিং করা হচ্ছে। কানাইঘাট উপজেলার লক্ষ্মীপ্রসাদ পশ্চিম ইউনিয়নের চেয়ারম্যান হাফিজ জামাল উদ্দিন জানান, তার ইউনিয়নের অধিকাংশ এলাকা পানিতে ডুবে গেছে। কয়েক হাজার মানুষ পানিবন্দি রয়েছে। এদিকে ধারাবাহিক বৃষ্টিপাতের ফলে সিলেটে সুরমা, কুশিয়ারা ও সারি-গোয়াইন নদী তিনটি পয়েন্টে বিপদসীমা অতিক্রম করেছে।

পানি উন্নয়ন বোর্ডের সিলেট কার্যালয়ের তথ্য মতে, প্রাক বর্ষাকালে সুরমা নদীর কানাইঘাট এলাকার ডেঞ্জার লেভেল ১০.৮০ সেন্টিমিটার। সেখানে বুধবার সকাল ৯টায় ছিল ১২.৪৫ সেন্টিমিটার পানি। সিলেটে সুরমার ডেঞ্জার লেভেল ০৮.৩০ সেন্টিমিটার। এই নদীর পানি বুধবার সকাল ৯টায় ছিল ৯.৪০ সেন্টিমিটার।

কুশিয়ারা নদীর পানি আমলশিদ পয়েন্টে ডেঞ্জার লেভেল হচ্ছে ১৩.০৫ সেন্টিমিটার। এই নদীর পানি বুধবার সকাল ৯টায় ছিল ১৫.২২ সেন্টিমিটার। কুশিয়ারা নদী শেওলা এলাকার ডেঞ্জার লেভেল ১০.৭০ সেন্টিমিটার। বুধবার সকাল ৯টায় ছিল ১১.৬৬ সেন্টিমিটার। সারি-গোয়াইন নদীর সারিঘাট পয়েন্টে ডেঞ্জার লেভেল হলো ১০.৭০ সেন্টিমিটার।এই পয়েন্টে বুধবার সকাল ৯টায় ছিল ১১.২৯ সেন্টিমিটার। সারিগোয়াইন নদীর গোয়াইনঘাট পয়েন্টে ডেঞ্জার লেভেল হলো ০৮.৬৫ সেন্টিমিটার। এই পয়েন্টে বুধবার সকাল ৯টায় ছিল ৯.৭৩ সেন্টিমিটার।

পানি উন্নয়ন বোর্ড সিলেটের নির্বাহী প্রকৌশলী দীপক রঞ্জন দাস বলেন, আমাদের নদ-নদীর পানি বৃদ্ধি পায় মূলত উজান থেকে নেমে আসা ঢলের কারণে। ভারতের মেঘালয় বা আসামে বৃষ্টি হলে তো পাহাড়ি ঢল আসবেই। এজন্য আমাদেরকে বন্যা মোকাবিলায় প্রস্তুত থাকতে হবে। সিলেট আবহাওয়া অফিসের তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায় সিলেটে ১৪৬.১ মিলিমিটার বৃষ্টি রেকর্ড করা হয়েছে। সিলেট আবহাওয়া অফিসের সহকারী আবহাওয়াবিদ শাহ মোহাম্মদ সজিব হোসেন বলেন, আগামী তিন দিন সিলেটে অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে।

এ ব্যাপারে সিলেটের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) মোবারক হোসেন জানান, ইতোমধ্যেই গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর, কোম্পানীগঞ্জ ও কানাইঘাট উপজেলায় আশ্রয় কেন্দ্র খোলা হয়েছে। সর্বশেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত গোয়াইনঘাটের কয়েকটি আশ্রয় কেন্দ্রে মানুষ উঠতে শুরু করেছে। এ ছাড়া আকস্মিক বন্যা পরিস্থিতি মোকাবিলায় জেলা প্রশাসন সার্বিক প্রস্তুতি নিয়েছে। সকল উপজেলা নির্বাহী অফিসারদের সার্বক্ষণিক তদারকি করতে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

শেয়ার করুন-

মন্তব্য করুন

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

যোগাযোগ

প্রধান কার্যালয়: +৮৮০৯৬১১৬৭৭৬৯৬ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (প্রিন্ট): +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন (অনলাইন): +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]

বিজ্ঞাপন মূল্য তালিকা