× ই-পেপার প্রচ্ছদ জাতীয় রাজনীতি দেশজুড়ে বিশ্বজুড়ে বাণিজ্য খেলা বিনোদন মতামত ফিচার শিল্প-সংস্কৃতি ভিডিও সকল বিভাগ ছবি ভিডিও লাইভ লেখক আর্কাইভ কনভার্টার

আবারও উড়তে চায় ইউনাইটেড এয়ার

প্রবা প্রতিবেদক

০৩ জানুয়ারি ২০২৩ ২০:০২ পিএম । আপডেট : ০৪ জানুয়ারি ২০২৩ ১৩:৩১ পিএম

মঙ্গলবার ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত বার্ষিক সাধারণ সভায় আমন্ত্রিত অতিথিরা। ছবি : সংগৃহীত

বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ-বেবিচক সারচার্জ মওকুফ করলে আবার বিমান ওড়ানোর আশা জানিয়েছে ইউনাইটেড এয়ার লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। মঙ্গলবার ভার্চুয়ালি বার্ষিক সাধারণ সভা-এজিএমে বিনিয়োগকারীদের এ প্রত্যাশার কথা জানায় পরিচালনা পর্ষদ। 

এজিএমে ইউনাইটেড এয়ারের পরিচালনা পর্ষদের চেয়ারম্যান কাজী ওয়াহিদুল আলম বলেন, এরই মধ্যে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে থাকা ইউনাইটেড এয়ারের সব বিমানের টেকনিক্যাল অডিট সম্পন্ন করা হয়েছে। একজন বিদেশি প্রকৌশলী এ অডিট সম্পন্ন করেছেন। সেই সঙ্গে ৬ বছরের বকেয়াসহ ৭ বছরের অডিটও সম্পন্ন করা হয়েছে, যা ইউনাইটেড এয়ারের বিনিয়োগকারীদের জন্য সুখবর। তিনি জানান, মূল চার্জের সঙ্গে সারচার্জ যোগ করে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ ইউনাইটেড এয়ারের কাছে প্রায় ৪০০ কোটি টাকা পাবে। এর মধ্যে ৫৮ কোটি টাকা মূল চার্জ। জরিমানা হিসেবে বাকি অর্থ মওকুফের জন্য এরই মধ্যে বেবিচক, বেসামরিক বিমান মন্ত্রণালয় ও অর্থ মন্ত্রণালয়কে চিঠি দেওয়া হয়েছে। বিষয়গুলো নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে কথা বলেছেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন-বিএসইসির চেয়ারম্যান। সেখানেও ইতিবাচক সাড়া পাওয়া গেছে। 

এ সময় ইউনাইটেড এয়ারের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এটিএম নজরুল ইসলাম জানান, দুটি স্তরে ইউনাইটেড এয়ারকে চালু করতে চান তারা। প্রথম দিকে দেশের অভ্যন্তরে কার্গো বিমান পরিচালনার মাধ্যমে শুরু করে; পরবর্তীতে দেশীয় ও আন্তর্জাতিক রুটে কার্গো ও যাত্রী পরিবহন পরিকল্পনা তুলে ধরেন। বর্তমানে বিমানের ব্যবস্থা পরিস্থিতি খুবই ভালো বলে উল্লেখ করে নজরুল ইসলাম বলেন, বর্তমানে এ ব্যবসা বিশ্বব্যাপী বাড়ছে। শাহজালাল বিমানবন্দরে তৃতীয় টার্মিনাল হলে এর পরিধি আরও বাড়বে। সেখানে বাংলাদেশি বিমান হিসেবে ইউনাইটেড এয়ার অবস্থান তৈরি করতে পারবে বলেও বিনিয়োগকারীদের আশ্বস্ত করেন।

পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ইউনাইটেড এয়ারের পরিচালনা পর্যদ ২০১৬ থেকে ২০২২ সাল পর্যন্ত সবগুলো বছরের এজিএম সম্পন্ন করে। এ সময় নিরীক্ষিত অডিট রিপোর্ট তুলে ধরা হয় বিনিয়োগকারীদের কাছে। বিনিয়োগকারীরা এসব রিপোর্ট ভোটের মাধ্যমে পাস করেন। 

এ সময় বিনিয়োগকারীদের ইউনাইটেড এয়ারের পরিচালনা পর্ষদের সাবেক প্রধান তাসবিরুল আলম চৌধুরীসহ অন্য পরিচালকদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার দাবি জানান। সেই সঙ্গে তাসবিরুল আলমের সব সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার দাবিও জানান তারা।

২০২১ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি ইউনাইটেড এয়ারের পরিচালনা পর্ষদ ভেঙে দিয়ে নতুন পরিচালনা পর্ষদ গঠন করে দেয় বিএসইসি। ২০১০ সালে তালিকাভুক্ত প্রতিষ্ঠানটির পরিচালনা পর্ষদের প্রধান তাসবিরুল আলম চৌধুরীকে বাদ দিয়ে চেয়ারম্যানের দায়িত্ব দেওয়া হয় কাজী ওয়াহিদুল আলমকে। আর ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দায়িত্ব পান এটিএম নজরুল ইসলাম। এরপর থেকে বিমানটিকে পুনরায় আকাশে ওড়াতে কাজ করে নতুন গঠিত পরিচালনা পর্ষদ। 

এর আগে বকেয়া বার্ষিক সাধারণ সভা করার জন্য হাইকোর্ট ও বিএসইসির কাছে অনুমোদন নেন তারা। দেশের একমাত্র উড়োজাহাজ সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে ২০১০ সালে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত হয় ইউনাইটেড এয়ার। ২০১৬ সালে হঠাৎ বন্ধ হয়ে যায় কোম্পানিটি। এতে তাদের শেয়ার দর নামতে নামতে ২ টাকার নিচে নেমে আসে। বর্তমানে কোম্পানিটির শেয়ার ওভার দ্য কাউন্টার বা ওটিসি মার্কেটে লেনদেন হচ্ছে। 

২০১৬ সালে বন্ধ হয়ে যাওয়ার সময় ইউনাইটেড এয়ারের বহরে ছিল ১০টি উড়োজাহাজ। এগুলোর মধ্যে ৮টি বর্তমানে শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পরিত্যক্ত অবস্থায় রয়েছে। বাকিগুলোর একটি ভারতে, আরেকটি পাকিস্তানে।

শেয়ার করুন-

Protidiner Bangladesh

সম্পাদক : মুস্তাফিজ শফি

প্রকাশক : কাউসার আহমেদ অপু

রংধনু কর্পোরেট, ক- ২৭১ (১০ম তলা) ব্লক-সি, প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড) ঢাকা -১২২৯

প্রিন্ট: +৮৮০১৯১১০৩০৫৫৭, +৮৮০১৯১৫৬০৮৮১২ । ই-মেইল: [email protected]

অনলাইন: +৮৮০১৭৯৯৪৪৯৫৫৯, +৮৮০১৮১৫৫৫২৯৯৭ । ই-মেইল: [email protected]

সার্কুলেশন: +৮৮০১৭১২০৩৩৭১৫ । ই-মেইল: [email protected]